বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪
৪ বৈশাখ ১৪৩১
শবে বরাত নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য: সেই ইসলামি বক্তার বিরুদ্ধে আরেক মামলা
প্রকাশ: বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ৮:০৭ পিএম |

শবে বরাত নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য: সেই ইসলামি বক্তার বিরুদ্ধে আরেক মামলাপবিত্র শবে বরাত নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের জের ধরে চট্টগ্রামের সাইবার ট্রাইবুনালে আরও একটি মামলা করা হয়েছে। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ড. ইউসুফ জিলানি (৪৫) নামে এক ইসলামি বক্তা বাদী হয়ে মামলাটি করেন। তিনি পাঁচলাইশ থানাধীন হামজারবাগ কাজি বিল্ডিং এলাকার হোসাইন আহমেদের ছেলে।

বুধবার চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ জহিরুল কবিরের আদালতে এ মামলা করা হয়।

মামলায় শায়েখ আকরামুজ্জামান বিন আব্দুস সালাম মাদানী এবং তার ইউটিউব চ্যানেলকে আসামি করা হয়েছে। আকরামুজ্জামান ইহইয়া-উস সুন্নাহ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক।

বাদীপক্ষের আইনজীবী মোহাম্মদ ফয়েজ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘পবিত্র শবে বরাত নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য দেওয়ায় বাদী ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত পেয়েছেন। আসামির বিরুদ্ধে সাইবার নিরাপত্তা আইন ২০২৩-এর ২৮ ও ৩১ ধারায় মামলা করা হয়েছে। আদালত মামলাটি গ্রহণ করেছেন। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটকে তদন্ত করে এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দিয়েছেন।’

মামলার এজাহারে ড. ইউসুফ জিলানি উল্লেখ করেন, অভিযুক্ত শায়েখ আকরামুজ্জামান ইসলাম ধর্মের পবিত্র রাত শবে বরাত নিয়ে বলেছেন, ১৪ শাবান তথা শবে বরাতের রাত্রিতে এইভাবে মসজিদে ভিড় না করে যদি (প্রকাশঅযোগ্য স্থানে) সময় কাটাই তারপরেও এর চেয়ে ভালো। সারা রাত যদি সে (প্রকাশঅযোগ্য স্থানে) থাকে সেটাও ভালো। অন্য জায়গায় তিনি আরও বলেন, শবে বরাত জিনার চেয়েও খারাপ। এগুলো তার ফেসবুক ও ইউটিউবে প্রচার করেছে। আসামির এ বক্তব্যে বাদী সাক্ষীসহ কোটি কোটি ধর্মপ্রাণ মুসলমানের ধর্মীয় অনুষ্ঠান শবে বরাত তথা ১৪ শাবানকে অবমাননার মাধ্যমে বাদীর ধর্ম বিশ্বাস ও অনুভূতিতে জঘন্যভাবে আঘাত করেছেন।

এজাহারে তিনি আরও উল্লেখ করেন, এই দেশে রাষ্ট্রীয়ভাবে যুগ যুগ ধরে মুসলমান সমাজে ১৪ শাবান তথা শবে বরাত পালন করে আসছে। সেখানে আসামির ওই বক্তব্য ধর্মবিরোধী ও ইসলামের অপব্যাখ্যা বলে প্রতীয়মান হয়। যা আসামি ইচ্ছাকৃতভাবে ধর্মীয় মূল্যবোধ বা অনুভূতিতে আঘাত করেছে।

বক্তব্যে উসকানি প্রদানের লক্ষ্যে শায়েখ আকরামুজ্জামান বিন আব্দুস সালাম মাদানী বক্তব্যের ভিডিও ধারণ করে তার ফেসবুক আইডিতে এবং ২ নম্বর আসামির ইউটিউব চ্যানেলে প্রচার করেছেন। যা ধর্মীয় অনুভূতি ও ধর্মীয় মূল্যবোধের ওপর আঘাত করা হয়েছে। আসামির এ বক্তব্যের কারণে এবং ফেসবুক ও ইউটিউবে প্রচারের কারণে সমাজের বিভিন্ন শ্রেণির বা মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে শত্রুতা, ঘৃণা-বিদ্বেষ সৃষ্টি হয়েছে এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করেছে।

শায়েখ আকরামুজ্জামানের এ বক্তব্যের মাধ্যমে সাম্প্রদায়িক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হয়েছে এবং আইনশৃঙ্খলা অবনতির উপক্রম হয়েছে।

বাদী ড. মো. ইউসুফ জিলানি বলেন, ‘পবিত্র শবে বরাত নিয়ে আসামি যেসব কথা বলেছেন সেগুলো ইসলাম ও কোরআন-হাদিসবিরোধী। তার এ বক্তব্যে আমি এবং দেশের কোটি কোটি ধর্মপ্রাণ মুসলমান তাদের ধর্মীয় বিশ্বাসে আঘাত পেয়েছেন। এ কারণে আমি আদালতে মামলা করেছি।’

এর আগে, একই অভিযোগে মঙ্গলবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাইবার ট্রাইব্যুনালে আরও একটি মামলা হয় শায়েখ আকরামুজ্জামান বিন আব্দুস সালাম মাদানীর বিরুদ্ধে। মামলাটি করেন আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআতের সদস্য মো. ফুয়াদ বিন হাকিম। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

এ ছাড়াও সোমবার রাতে নগরীর জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া আলিয়া মাদ্রাসার আরবি প্রভাষক আবুল আসাদ মোহাম্মদ জুবাইর পাঁচলাইশ থানায় শায়েখ আকরামুজ্জামান বিন আব্দুস সালাম মাদানীর  বিরুদ্ধে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।












সর্বশেষ সংবাদ
টাকা ভাগাভাগি নিয়ে আওয়ামী লীগ-যুবলীগ সংঘর্ষ, নিহত ১
দেবিদ্বারে এসএসসি ২০০৩ ব্যাচের ঈদ পুর্নমিলনী
মনোহরগঞ্জের নাথেরপেটুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের ঈদ পূনর্মিলনী অনুষ্ঠিত
সমালোচনার মুখে ইউটিউব থেকে সরলো ‘রূপান্তর’ নাটক
কর্মচারীকে অজ্ঞান করে এজেন্ট ব্যাংক থেকে টাকা লুট
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
ছাত্রলীগ নেতার আপত্তিকর ভিডিও ভাইরাল
ঈদের নতুন টাকায়ও ক্ষমতার দাপট
কুমিল্লার চার উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ১৪ জনের মনোনয়নপত্র জমা
মার্চ মাসে কুমিল্লায় ৭১ টি অগ্নিকাণ্ড: জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির তথ্য
নিয়ন্ত্রণ হারানো বাইক গাছে ধাক্কা, দুই বন্ধুর মৃত্যু
Follow Us
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩, +৮৮ ০১৭১১ ৯৯৭৯৬৯, +৮৮ ০১৯৭৯ ১৫২৪৪৩, ই মেইল: [email protected]
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত, কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০২২ | Developed By: i2soft