বুধবার ১৯ জুন ২০২৪
৫ আষাঢ় ১৪৩১
মেয়র পদে আলোচনায় আওয়ামী লীগের ৮ প্রার্থী, বিএনপির দুজন
কুমিল্লা সিটি উপনির্বাচন:
তানভীর দিপু:
প্রকাশ: রোববার, ২৮ জানুয়ারি, ২০২৪, ৯:৫৪ পিএম |

মেয়র পদে আলোচনায় আওয়ামী লীগের ৮ প্রার্থী, বিএনপির দুজনদ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের রেশ কাটতে না কাটতেই আবারও কুমিল্লা মহানগরের রাজনীতিতে ভোটের উৎসব শুরু হচ্ছে। আগামী ৯ মার্চ কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মেয়র পদে উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। মেয়র আরফানুল হক রিফাতের মৃত্যুর পর পদটি শূন্য ঘোষণা করা হয়। এদিকে নির্বাচনে অংশ নিতে ইতোমধ্যে গণসংযোগ সহ নানান কার্যক্রমে সরব হয়ে উঠেছেন সম্ভাব্য প্রার্থীরা।  আওয়ামী লীগ সমর্থিত সম্ভাব্য প্রার্থীরা এখনো আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকাশ্যে না আসলেও,  বিএনপি ঘরানার যারা নির্বাচন করতে চান - তারা ইতিমধ্যে ঘোষণা দিয়েছেন নির্বাচনে অংশ নেয়ার। আলোচনায় আড্ডায় অন্তত দশজন সম্ভবত প্রার্থীর নাম মানুষের মুখে মুখে। ১৩ই ফেব্রুয়ারি মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ধার্য করেছে নির্বাচন কমিশন।  
বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনে  প্রার্থীতা করতে পারেন এমন  আলোচনায় আছেন কুমিল্লা  মহানগর আওয়ামী লীগের সহ- সভাপতি ও জেলা জজ আদালতের পিপি জহিরুল ইসলাম সেলিম, কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-আহ্বায়ক ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের সাবেক ভিপি শফিকুল ইসলাম সিকদার, মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আতিক উল্লাহ খোকন, মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের সাবেক ভিপি নুর-উর রহমান মাহমুদ তানিম, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সদর আসনের এমপি আ ক ম বাহাউদ্দিনের মেয়ে তাহসীন বাহার সূচনা, মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক ও জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ সহিদ,  দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা কবিরুল ইসলাম শিকদার এবং প্রয়াত মেয়র আরফানুল হক রিফাতের স্ত্রী অধ্যাপিকা ফারহানা হক শিল্পী।
এদিকে বিএনপির নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত থাকলেও দলটির বহিষ্কৃত দুই নেতা - সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু এবং সাবেক যুবদল নেতা নিজাম উদ্দিন কায়সার নির্বাচনে অংশ নেবেন বলে জানা গেছে। দল থেকে বহিষ্কৃত হয়ে এই দুইজনের প্রতিদ্বন্দ্বিতা গত নির্বাচনে বেশ সাড়া ফেলেছিলো।
এ বিষয়ে সাবেক মেয়র মনিরুল হক সাক্কু  বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে চিন্তা-ভাবনা আছে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার। তারপরও দলের গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে এ বিষয়ে মতামত জানাবো। চেষ্টা করছি দলের হাই কমান্ডের সাথে কথা বলার ।’ 
আর সাবেক যুবদল নেতা নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন, 'কুমিল্লা সিটির তরুণ প্রজন্মসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ আমার সঙ্গে আছেন। প্রতিনিয়ত আমাকে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার জন্য উৎসাহিত করছেন। গত নির্বাচনে অংশ নিয়ে নগরবাসীর বিপুল সমর্থন পেয়েছি।আমি নির্বাচনের প্রস্তুতি নিয়েই কাজ করছি। '
অন্যদিকে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার এমপির অনুসারী সম্ভাব্য প্রার্থীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে,  তারা সবাই দলীয় হাইকমান্ড ও বাহাউদ্দিন বাহারের নির্দেশনার অপেক্ষায় আছেন।  অনেকেই নির্বাচন করতে ইচ্ছুক হলেও প্রকাশ্যে স্বীকার করছেন না তারা। তবে মহানগর আওয়ামীলীগের অপর দুই নেতা নূর উর রহমান মাহমুদ তানিম এবং কবিরুল ইসলাম সিকদার নির্বাচন করবেন বলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন। 
এ বিষয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের সহ- সভাপতি এ্যাড. জহিরুল ইসলাম সেলিম বলেন, 'প্রার্থীতার বিষয়ে দলীয় সিদ্ধান্তই চুড়ান্ত। আমাদের দলের সভা হয়েই কে প্রার্থী হবেন তার সিদ্ধান্ত হবে। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি দল যাকে চাইবেন তিনিই নির্বাচন করার প্রস্তুতি নিবেন।'
অপর দিকে, কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা নুর-উর রহমান মাহমুদ তানিম বলেন, ‘ কুমিল্লা সিটি মেয়র আমার স্বপ্ন। দীর্ঘদিন মুজিব আদর্শের রাজনীতি করছি- ছাত্র রাজনীতি করেছি। কুমিল্লার মানুষের উন্নয়ণ ও সেবার জন্য মেয়র হবার প্রত্যাশা রাখি। নেত্রীর কাছে দলীয় মনোনয়ন চাইবো। আশা করছি তিনি আমাকে নিরাশ করবেন না। কারণ দলের জন্য আমার ত্যাগ অনেক।’
কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা কবিরুল ইসলাম সিকদার জানান, 'রাজনীতি করেছি মানুষের সেবা করার জন্য।  মানুষের সেবা করতে হলে নির্বাচন করতে হবে - আবারো কুমিল্লা সিটি মেয়র পদে নির্বাচনে আসছে। আমি নিজেকে যোগ্য মনে করি। তাই এই নগরীর মানুষের জন্য কাজ করতে দলীয় প্রধানের  কাছে মনোনয়ন চাইবো। '

তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ দিন ১৩ ফেব্রুয়ারি। যাচাই-বাছাই ১৫ ফেব্রুয়ারি। আপিল নিষ্পতি ১৯ ও ২০ ফেব্রুয়ারি। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ২২ ফেব্রুয়ারি। প্রতীক বরাদ্দ ২৩ ফেব্রুয়ারি। ভোটগ্রহণ ৯ মার্চ সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত।
কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের আয়তন প্রায় ৫৩ দশমিক ৮৪ বর্গ কিলোমিটার। এ সিটিতে ২৭টি ওয়ার্ড রয়েছে, যেখানে ১০ লক্ষাধিক মানুষের বসবাস। এর আগে এখানে কুমিল্লা পৌরসভা ও কুমিল্লা সদর দক্ষিণ পৌরসভা নামে দুটি পৌরসভা ছিল। ২০১১ সালের ১০ জুলাই স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় এক অধ্যাদেশ জারি করে প্রশাসন পৌরসভা দুটিকে একটি সিটি করপোরেশনের মর্যাদা দেয়। বর্তমানে কুমিল্লা সিটিতে দুই লাখ ৪২ হাজার ভোটার রয়েছে।
২০১২ সালে কুমিল্লার প্রথম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ২৯ হাজার ৩০৬ ভোটের ব্যবধানে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আফজল খানকে হারিয়ে মেয়র নির্বাচিত হন সম্মিলিত নাগরিক কমিটির প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু। তিনি পান ৬৫ হাজার ৭৭৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী অ্যাডভোকেট আফজল খান পান ৩৬ হাজার ৪৭১ ভোট।
২০১৭ সালের ৩০ মার্চ কুসিকের নির্বাচনে দ্বিতীয়বারের মতো মেয়র নির্বাচিত হন সাক্কু। ধানের শীষ প্রতীকে সাক্কু পান ৬৮ হাজার ৯৪৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের আঞ্জুম সুলতানা সীমা পেয়েছিলেন ৫৭ হাজার ৮৬৩ ভোট।
২০২৩ সালের কুসিকের তৃতীয়বারের নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কুকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো মেয়র নির্বাচিত হন নৌকা প্রতীকের আরফানুল হক রিফাত। ওই নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী রিফাত ৫০ হাজার ৩১০ এবং মনিরুল হক সাক্কু পান ৪৯ হাজার ৯৬৭ ভোট।












সর্বশেষ সংবাদ
দাউদকান্দি টোলপ্লাজায় ফিরিয়ে দেয়া হচ্ছে ঢাকামুখী চামড়াবাহী ট্রাক
কুমিল্লায় ঈদের প্রধান জামাত সকাল ৮টায়
‘লাব্বাইক’ ধ্বনিতে মুখর আরাফাতের ময়দান
বেশি ভাড়া রাখায় উপকূল পরিবহনকে জরিমানা
কুমিল্লায় সড়কে ঝরলো ৫ প্রাণ
আরো খবর ⇒
সর্বাধিক পঠিত
দাউদকান্দি টোলপ্লাজায় ফিরিয়ে দেয়া হচ্ছে ঢাকামুখী চামড়াবাহী ট্রাক
কুমিল্লায় ঈদের প্রধান জামাত সকাল ৮টায়
বেশি ভাড়া রাখায় উপকূল পরিবহনকে জরিমানা
ত্যাগের মহিমায় উদ্ভাসিত হোক
কুমিল্লায় সড়কে ঝরলো ৫ প্রাণ
Follow Us
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩, +৮৮ ০১৭১১ ৯৯৭৯৬৯, +৮৮ ০১৯৭৯ ১৫২৪৪৩, ই মেইল: [email protected]
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত, কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০২২ | Developed By: i2soft