.
 
Publish Date: 30 Nov -0001 00:00:00

মুরাদনগরে বাড়ছে অপচিকিৎসা
Share
নিজস্ব প্রতিবেদক: মুরাদনগর উপজেলা সদর এবং আশে পাশের ইউনিয়নগুলোতে ঝাঁড় ফুক তাবিজ-টোনা নির্ভর অপচিকিৎসা ব্যাপকহারে বেড়ে গেছে। কবিরাজ ও তান্ত্রিকদের খপ্পরে পড়ে নিরীহ লোকজন স্বাস্থের পাশাপাশি আর্থিকভাবেও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। জানা যায়, মুরাদনগর উপজেলার ধামঘর, আড়ালিয়া, ঘোড়াশাল, সাতমোড়া, রায়তলা, লক্ষ্মীপুর, আমপাল, পাচঁকিত্তা, বাঁশকাইট, টনকী, ত্রিশ, কামাল্লা ও কোম্পানীগঞ্জ বাজারে কবিরাজ এর ঘর ছাড়াও এ উপজেলায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা শতাধিক করিবাজ ও তান্ত্রিক চিকিৎসার প্রতিষ্ঠান রয়েছে। তারা সাধারণ মানুষের সরলতার সুযোগ নিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। কোনো কোনো কবিরাজ ও তান্ত্রিক টোটকা চিকিৎসার ফাঁদ পেতে কোটি বনে গেছে। শুধু অসচেতন ও অশিক্ষিতই নয় তাদের চটকদার কথায় বশিভূত হয়েছেন অনেক শিক্ষিত মানুষও। এদের নির্ধারিত কোন ফি নেই। রোগিদের আর্থিক অবস্থা আচঁ করে তারা ফি আদায় করে থাকেন। ফি হিসেবে ৫০ টাকা থেকে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করে থাকেন। এসব কবিরাজকে ঘিরে গড়ে উঠছে ওই এলাকায় এক শ্রেণীর দালাল চক্র। তাদের সঙ্গে স্থানীয় রাজনৈতিক নেতা ও প্রভাবশালীরা রয়েছেন। এসব কবিরাজ ও তান্ত্রিকদের কাছে চিকিৎসা নেয়া কয়েক রোগিদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সুফল পেয়েছেন কিনা তা তারা নিজেরাই বুঝতে পারেন না। তান্ত্রিক কবিরাজের নিষেধও থাকে এ ব্যাপারে কথা না বলার। এসব কবিরাজের সরকারি অনুমোদন কিংবা অনুমতি নেই। উপজেলা প্রশাসন কিংবা সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য বিভাগের কোন নজরদারি না থাকায় বেপোরোয়া হয়ে উঠছে ওইসব ভন্ড তান্ত্রিক কবিরাজরা।
 
The Sire Design Mantain & Developed by RiverSoftBD