ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন অ্যাপস কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইকালে ভূয়া মুক্তিযোদ্ধার ছড়াছড়ি অভিযোগ করে
মুরাদনগরে ডেপুটি কমান্ডারসহ ২ মুক্তিযোদ্ধা লাঞ্চিত
Published : Friday, 19 May, 2017 at 9:40 PM, Count : 783
মুরাদনগরে ডেপুটি কমান্ডারসহ ২ মুক্তিযোদ্ধা লাঞ্চিতমো. হাবিবুর রহমান : মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইকালে মুরাদনগর উপজেলায় ভূয়া মুক্তিযোদ্ধার ছড়াছড়ির অভিযোগ করে লাঞ্চিত হলেন উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের ডেপুটি কমান্ডার ও সেনাবাহিনীর (অব:) সার্জেন্ট জাহাঙ্গীর আলম এবং মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী। শুক্রবার বেলা অনুমান ১১টায় মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাইকালে উপজেলা পরিষদের কবি নজরুল মিলনায়তনে এ ঘটনা ঘটে। বিষয়টি নিয়ে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা রোধে জাহাঙ্গীর আলম প্রায় ৩ শতাধিক মুক্তিযোদ্ধার বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা মন্ত্রনালয়সহ যাচাই-বাছাই কমিটির নিকট লিখিত অভিযোগ করে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও মুক্তিযোদ্ধারা জানায়, শুক্রবার অভিযোগ থাকা মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই বাছাই করার জন্য পূর্বনির্ধারিত তারিখ ছিল। মুক্তিযোদ্ধা হানিফ সরকারের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রাসেলুল কাদেরসহ ছয় সদস্য কর্তৃক মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই কমিটির সামনে সাক্ষ্য গ্রহন চলাকালে এনামুল হক নামের একজন মুক্তিযোদ্ধার বিরুদ্ধে অভিযোগ করে ডেপুটি কমান্ডার জাহাঙ্গীর আলম। এ সময় উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হওয়ার সময় অন্য অভিযুক্তরা এসে জাহাঙ্গীর আলমকে কিল ঘুষি মেরে লাঞ্চিত করে। পরে তাৎক্ষনিক পুলিশ এনে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করা হয়।

এ সময় আহত জাহাঙ্গীর আলম অভিযোগ করেন, ভূয়া মুক্তিযোদ্ধার তালিকাসহ তার গুরুত্বপূর্ন কাগজপত্র হামলাকারীরা ছিনিয়ে নিয়ে গেছে। পরে আত্মরক্ষার্থে পুলিশ প্রহরায় সে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। একই সময়ে উপজেলা পরিষদ চত্বরেই পালাসুতা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলীর উপর হামলা করেছে দারোরা ও কাজিয়াতল গ্রামের কয়েকজন ভূয়া মুক্তিযোদ্ধার আত্মীয়-স্বজন। হামলাকারীদের দাবি মোহাম্মদ আলী পক্ষে স্বাক্ষী না দিয়ে বিপক্ষে অবস্থান নেওয়ায় তাদের বাবারা মুক্তিযোদ্ধা হতে পারছেন না। পরে অভিযুক্ত মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্ধে আর কেউ স্বাক্ষ্য না দেওয়ায় যারা মুক্তিযুদ্ধ করেনি, প্রশিক্ষণ নেয়নি, ভারতে যাননি বরং মুক্তিযোদ্ধাদের দু-একবার ভাত খাইয়ে সহযোগিতা করেছে এমন লোকদেরকেও তালিকায় অর্ন্তভূক্ত করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

হামলার শিকার উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিলের ডেপুটি কমান্ডার ও সেনাবাহিনীর (অব:) সার্জেন্ট জাহাঙ্গীর আলম এবং মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী জানান, যাচাই-বাছাই ছাড়াই ভূয়াদের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে অন্তর্ভূক্ত করার জন্য তাদের উপর পরিকল্পিত ভাবে হামলা করা হয়েছে। এখন অভিযোগ ছাড়াই একক ভাবে কমান্ডার হারুনুর রশিদের নেতৃত্বে একটি চক্র মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে কমিটির ২/৩ জন সদস্যদের ম্যানেজ করে মুক্তিযোদ্ধা বানাচ্ছে।

এ ঘটনায় ভূয়া মুক্তিযোদ্ধারা উল্লসিত হলেও যুদ্ধকালিন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার গিয়াস উদ্দিন মাহমুদ বলেন, এ অনভিপ্রেত ঘটনায় আমরা মর্মাহত। উপজেলা ডেপুটি কমান্ডার জাহাঙ্গীর আলম প্রায় ৩০০ মুক্তিযোদ্ধার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে তার সবগুলো অভিযোগ সত্য না হলেও প্রায় ৭০ ভাগ সত্য। লাঞ্চিত হওয়ার বিষয়ে তার বিরুপ আচরণও অনেকাংশে দায়ী।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও যাচাই-বাছাই কমিটির সদস্য সচিব মোহাম্মদ রাসেলুল কাদের জানান, মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই বাছাই নির্ভর করছে মুক্তিযোদ্ধাদের স্বাক্ষ্যের উপর। ডেপুটি কমান্ডার জাহ্ঙ্গাীর আলমের উপর হামলার বিষয়ে তিনি ধস্তাধস্তি হয়েছে বলে স্বীকার করেন।  



« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৬
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
কার্যালয়: কাজী অহিদুজ্জামান ম্যানশন, তৃতীয় তলা, কান্দিরপাড়,কুমিল্লা-৩৫০০, বাংলাদেশ
ফোন: +৮৮০ ৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২৪৪৩, +৮৮০ ১৭১৮০৮৯৩০২
ই মেইল: hridoycomilla@yahoo.com, newscomillarkagoj@gmail.com,  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ কাজী অহিদুজ্জামান ম্যানশান।
তৃতীয় তলা, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : hridoycomilla@yahoo.com Developed by i2soft