ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
কলঙ্ক মুক্ত হতে চায় চান্দিনাবাসী
Published : Saturday, 15 August, 2020 at 12:00 AM, Count : 135
রণবীর ঘোষ কিংকর: আজ ১৫ আগস্ট। জাতীয় শোক দিবস। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার কলঙ্কময় দিন। বছরের পর বছর কলঙ্কের বোঝা মাথায় নিয়ে বয়ে বেড়ালেও আগামী বছরের শোক দিবসের আগেই চান্দিনাকে কলঙ্কমুক্ত চায় উপজেলাবাসী।
বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি ফাঁসির দন্ডাদেশপ্রাপ্ত কর্ণেল (অব.) খন্দকার আব্দুর রশিদকে দেশে ফিরিয়ে এনে ফাঁসি কার্যকরের মধ্যদিয়ে চান্দিনাকে কলঙ্কমুক্ত করার দাবী জানিয়েছেন এই উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার প্রায় ৪৫ বছর অতিবাহিত হচ্ছে। এখনও অধরা  আরও ৫ খুনি। ওই খুনিদের মধ্যে ঘৃণিত এক নাম কর্নেল (অব.) খন্দকার আব্দুর রশিদ।
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১৯৯৬ইং সালের সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ সরকার গঠন করার পর দেশ ত্যাগ করে আত্মগোপনে চলে যায় বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি খন্দকার আব্দুর রশিদ।
২০১০ সাল থেকে এ পর্যন্ত ৬ খুনিকে দেশে ফিরিয়ে এনে ফাঁসি কার্যকর করা হলেও আদৌ খুনি আব্দুর রশিদ এর অবস্থান নিশ্চিত করতে পারেনি সরকার। আব্দুর রশিদ এর ফাঁসি কার্যকর না হওয়ায় চান্দিনাবাসী যেন আজও কলঙ্কিত।
কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার কেরনখাল ইউনিয়নের ছয়ঘড়িয়া গ্রামের খন্দকার আব্দুর করিম এর দ্বিতীয় ছেলে আব্দুর রশিদ। তার নিজ গ্রামের মানুষই যেন কলঙ্কের ভারে ন্যূব্জে পড়ছে।
ছয়ঘড়িয়া গ্রামের হোটেল দোকানী আনোয়ার হোসেন মজুমদার তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন- ‘আরে ভাই, এই একটা অমানুষের লাইগ্গা আমরা যেন বাইচ্চাও মইরা রইছি। যে মানুষটার জন্ম না হইলে বাংলাদেশ পাইতাম না, আর এমন একটা মানুষের পুরা পরিবারডা শেষ করছে রশিদের মতন অমানুষরা। তারে (রশিদকে) যতদিন ফাঁসিতে না ঝুলাইবো ততদিন আমরা কলঙ্কমুক্ত হইতাম না।
খন্দকার রশিদের কারণে কলঙ্কিত চান্দিনা এমন প্রসঙ্গে কেরনখাল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ জানান- ‘আমরা কেমন কলঙ্কিত তা ভাষায় বুঝাতে পারবো না। আমার বাড়ি ছয়ঘড়িয়া গ্রামে কিন্তু খুনি রশিদের কারণে নিজের গ্রামের নামটি বাহিরে কোথাও উচ্চারণ করতে পারি না। ছয়ঘড়িয়া গ্রামের নাম আসলেই যেন মানুষ বঙ্গবন্ধুর খুনি রশিদের নাম উচ্চারণ করে আমাদের কলঙ্কিত করে। তার লাশটিও দেখতে চায়না আমার ইউনিয়নবাসী। সরকারের কাছে আমাদের বিনীত প্রার্থনা দ্রুত ওই খুনিকে দেশে ফিরিয়ে এনে ফাঁসির রায় কার্যকর করে আমাদের কলঙ্কমুক্ত করুন।
কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসন থেকে ৪ বার নির্বাচিত সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এমপি বলেন- রশিদকে যতদ্রুত সম্ভব দেশে ফিরিয়ে এনে ফাঁসি কর্যাকর করা হবে ততদ্রুত চান্দিনা কলঙ্কমুক্ত হবে। রশিদরা যতদিন বেঁচে থাকবে তাদের ষড়যন্ত্রের জাল তত বিস্তার করবে। ১৯৯৬ সালের জুন মাসের নির্বাচনে ভোটের মাধ্যমেই এদেশের মানুষ জানান দিয়েছে খুনিদের এদেশে ঠাঁই নেই।



« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft