ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
লাকসামে মাস্ক পরিধানে অনীহা জনসাধারণের
Published : Friday, 14 August, 2020 at 12:50 AM, Count : 382
লাকসামে মাস্ক পরিধানে অনীহা জনসাধারণেরলাকসামে করোনা সংক্রমণের সাড়ে তিন মাসে সংগৃহিত ১৬০৭ জনের নমুনায় ৩৭৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত ১৬ এপ্রিল এ উপজেলায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। ক্রমান্বয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে সাড়ে তিন মাসের ব্যবধানে তা কিছুটা বেড়েছে। পক্ষান্তরে লাকসামে দিন দিন কমছে জনসচেতনতা। মাস্ক পরিধানে অনীহা জনসাধারণের। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে জনসাধারণের মাঝে সরকারি নির্দেশনা বা সচেতনতা নেই বললেই চলে। উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, গত ১৬ এপ্রিল উপজেলার গোবিন্দপুর ইউনিয়নের দোগাইয়া গ্রামে নারায়নগঞ্জ ফেরত এক যুবকের করোনা শনাক্তের মধ্য দিয়ে লাকসামে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। পরবর্তীতে ২৫ এপ্রিল নোয়াখালীর চৌমুহনী থেকে করোনায় মৃত সহকর্মীর সংস্পর্শ থেকে আসা পৌরশহরের দক্ষিণ লাকসাম সাহা পাড়া এলাকার দুই সহোদরের করোনা শনাক্ত হয়। তার পরিবারের বাকি সদস্যদের নমুনা সংগ্রহের পর ২৯ এপ্রিল একই পরিবারের আরো ছয় সদস্যের করোনা শনাক্ত হয়। মে মাসের শুরুর দিকে চট্টগ্রাম থেকে করোনা উপসর্গ নিয়ে লাকসামের বাসায় আসেন জনৈক ব্যবসায়ী। ১৫ মে তার করোনা শনাক্ত হলে তার পরিবারের বাকী পাঁচ সদস্যেরও নমুনা সংগ্রহ করা হয়। ১৮ মে তাদের সকলের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ১৮ মে পর্যন্ত লাকসামে নোয়াখালী ফেরত করোনা আক্রান্ত দুই সহোদর ও তার পরিবার এবং চট্টগ্রাম ফেরত করোনা আক্রান্ত ব্যবসায়ী ও তার পরিবারের সদস্যরা সহ সর্বমোট ২২ জন করোনা আক্রান্ত ছিলো। ধীরে ধীরে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকে। ১১ আগস্ট পর্যন্ত লাকসামে সর্বমোট ৩৭৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তার মধ্যে সুস্থ্য হয়েছেন ৩১০ জন এবং মৃত্যুবরণ করেছেন ০৯ জন।
এদিকে লাকসামে দিন দিন কমছে জনসচেতনতা। করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে জনসাধারণের মাঝে সচেতনতা নেই বললেই চলে। করোনার আবির্ভাবের পূর্বে মানুষ যেভাবে অবাধ চলাচল করতো, এখনও ঠিক সেভাবেই চলাচল করে। প্রতিদিন দৌলতগঞ্জ বাজারসহ উপজেলার প্রায় প্রত্যেকটি বাজারেই দিনভর মানুষের উপচে পড়া ভীড়  থাকে। প্রয়োজন কিংবা অপ্রয়োজনেও ঘর থেকে বের হলে সামাজিক দূরত্বের তোয়াক্কা করছে না কেউই। সরকার কর্তৃক মাস্ক পরিধান বাধ্যতামূলক ঘোষনা করা হলেও তৃণমূল পর্যায়ে মাস্ক পরিধানে গুরুত্ব দিচ্ছে না বেশির ভাগ জনসাধারণ। অপরদিকে করোনা পরীক্ষার ফি নির্ধারণের পর থেকে নমুনা জমা দিতে অনাগ্রহ প্রকাশ করছেন উপসর্গ বহনকারী অনেকেই। যার ফলে এ উপজেলায় সর্বমোট করোনা আক্রান্তের সঠিক সংখ্যা অশনাক্তই বলা যায়।
লাকসাম উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আব্দুল আলী লাকসামে ৩৭৪ জনের করোনা শনাক্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। করোনা সংক্রমন থেকে রক্ষা পেতে তিনি সকলকে মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন।
 


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft