ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
১০ হাজার কোটি টাকার বিশেষ তহবিল চায় আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো
Published : Wednesday, 1 July, 2020 at 12:41 AM, Count : 215
 ১০ হাজার কোটি টাকার বিশেষ তহবিল চায় আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোনিজস্ব প্রতিবেদক ||

করোনাভাইরাস প্রার্দুভাবের কারণে আদায় হচ্ছে না ঋণ। অন্যদিকে কাঙ্ক্ষিত আমানতও পাচ্ছে না। ফলে তারল্য সংকটে ভুগছে দেশের ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো (এনবিএফআই)। চলমান সংকট উত্তোরণে ১০ হাজার কোটি টাকার বিশেষ তহবিল চেয়েছে প্রতিষ্ঠানগুলো। তাদের এ তহবিল গঠনের ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

মঙ্গলবার চলমান সংকট মোকাবিলায় বেশকিছু প্রস্তাব নিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে বৈঠক করে ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধান নির্বাহীদের সংগঠন বাংলাদেশ লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্স কোম্পানিজ অ্যাসোসিয়েশন (বিএলএফসিএ)।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, এস এম মনিরুজ্জামান, নির্বাহী পরিচালক শাহ আলমসহ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এবং বিএলএফসি চেয়ারম্যান ও আইপিডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মমিনুল ইসলাম, আইডিএলসি ফাইন্যান্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী আরিফ খান, ইসলামিক ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডের (আইএফআইএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবু জাফর মো. সালেহ, ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট ফাইন্যান্স কোম্পানি (আইআইডিএফসি) লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম সারওয়ার ভূঁইয়া প্রমুখ।

বিএলএফসিএর পক্ষ থেকে বলা হয়, আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো বেশিরভাগ ঋণ দীর্ঘমেয়াদি। করোনার কারণে এসব ঋণের কিস্তি আদায় হচ্ছে না। এছাড়া ছোট ঋণগ্রহীতারা চলমান সংকটের কারণে ঋণ পরিশোধ করতে পারছে না। একদিকে ঋণের অর্থ ফেরত পাওয়া যাচ্ছে না অন্যদিকে তারল্য সংকট। এ কারণে সহায়তা দরকার। ১০ হাজার কোটি টাকা বিশেষ তহবিল গঠনের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। যেখান থেকে সহজে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যাংক রেটে ঋণ নিতে পারে। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে।

বৈঠক প্রসঙ্গে আইআইডিএফসি গোলাম সারওয়ার ভূঁইয়া বলেন, চলমান সংকট ও সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর বেশকিছু প্রস্তাব গভর্নরের কাছে তুলে ধরা হয়। এর মধ্যে অন্যতম চলমান তারল্য সংকট মোকাবিলায় ১০ হাজার কোটি টাকা বিশেষ তহবিল গঠন করা। এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ইতিবাচক সাড়া দিয়েছে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তহবিল গঠনে কিছু নিয়মনীতি রয়েছে। বাংলাদেশ ব্যাংক এই তহবিল গঠন করতে পারে না। এক্ষেত্রে সরকারের সহযোগিতা দরকার। তহবিল গঠনে কেন্দ্রীয় ব্যাংক বিএলএফসিকে সব ধরনের সহযোগিতা করবে। এক্ষেত্রে সুুুনির্দিষ্ট প্রস্তাব দিতে বলেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

নির্দেশনা অনুযায়ী, ব্যাংকগুলো ১ এপ্রিল থেকে সব ঋণের সুদহার ৯ শতাংশে নামিয়ে এনেছে। কিন্তু এখনো বেশিরভাগ ব্যাংক এনবিএফআইয়ের কাছ থেকে বেশি সুদ আদায় করছে। এ বিষয়ে গভর্নরের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেবেন বলে গভর্নর আশ্বাস দেন।

করোনায় আর্থিক ক্ষতি মোকাবেলায় ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজে ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর অন্তর্ভুক্ত করা এবং এর সুবিধাগুলো যেন সহজে গ্রহণ করা যায় তার প্রস্তাব দেয়া হয়।

পুনর্গঠনের সময়সীমা বৃদ্ধিসহ পুনর্গঠন নীতিমালা উদারীকরণের দাবি জানায় ব্যাংক বহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো। বর্তমান নিয়মে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো পুনর্গঠনের ক্ষেত্রে ২৫ শতাংশ সময় বাড়াতে পরে। চলমান সংকট বিবেচনায় এটি বাড়ানোর প্রস্তাব দেয়া হয়। এখন ৫০ শতাংশ সময় বাড়ানো সুযোগ দেয়া হবে বলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক আশ্বাস দিয়েছে।

আইএফআইএল ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবু জাফর মো. সালেহ বলেন, গ্াংহকের কাছ থেকে নয় মাস কোনো ঋণের কিস্তি আদায় করা হচ্ছে না। ব্যাংকগুলো আমাদের ঋণ দিয়েছে। আমরা চাচ্ছি ব্যাংকগুলো যেন আমাদের এই সুবিধাগুলো দেয়। চলমান সংকটে যেন আমাদের ঋণের কিস্তি স্থগিত রাখে।

স্বল্পমেয়াদি ঋণ নবায়নের ক্ষেত্রে বর্তমান নিয়মে অনুযায়ী পুরো ঋণের টাকা পরিশোধ করতে হয়। যেহেতু এ বছর ঋণ গ্রহীতারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তাই এ সময় ঋণ নবায়নের ক্ষেত্রে পুরো অর্থ শোধ না করে শুধু সুদ পরিশোধ করে ঋণ নবায়নের প্রস্তাব দিয়েছে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর প্রধান নির্বাহীরা ।

জানা গেছে, বর্তমানে দেশে কার্যক্রম পরিচালনা করছে ৩৩টি এনবিএফআই। অনিয়ম দুর্নীতি আর লুটের কারণে গ্রাহকদের আমানত ফেরত দিতে ব্যর্থ হওয়া পিপলস লিজিংকে অবসায়ন প্রক্রিয়া চলছে। তবে সম্প্রতি নতুন করে আরো একটি এনবিএফআইকে লাইসেন্স দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। দেশের সবকটি এনবিএফআইয়ের মোট সম্পদ ও দায় প্রায় ৮৬ হাজার কোটি টাকা।


« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft