ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
৩০% রিপোর্ট ভুল আসতেই পারে : ডা. কান্তি প্রিয় দাশ
Published : Saturday, 6 June, 2020 at 12:00 AM, Count : 297
৩০% রিপোর্ট ভুল আসতেই পারে : ডা. কান্তি প্রিয় দাশবশিরুল ইসলাম: কালেকশালনকৃত সেম্পলের (নমুনা) কারণে মাঝে-মধ্যে মেশিনে ফলস্ (ভুল) রিপোর্ট আসতে পারে-উল্লেখ করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের প্যাথোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. কান্তি প্রিয় দাশ বলেছেন, ‘আন্তর্জাতিক স্ট্যান্ডার্ড (মান) অনুযায়ী পিসিআর মেশিনে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত রিপোর্ট ভুল (নেগেটেভি-পজেটিভ) আসতে পারে। সে হিসেবে কুমেকের ল্যাবে করোনা পরীক্ষার ২০ শতাংশ ভুল রিপোর্ট আসাও স্বাভাবিক। একদিনের রিপোর্টের উপর ভিত্তি করেই মেশিন বা রিপোর্টের মান নিয়ে প্রশ্ন তোলার কিছু নেই।’
তিনি বলেন, ‘কুমিল্লা মেডিকেলের পিসিআর মেশিনটিতে আমি এখনো কাজ করছি। ভুল পজেটিভ বা ভুল নেগেটিভ কিছু আসতেই পারে। আন্তর্জাতিক স্ট্যান্ডার্ড অনুযায়ী ৩০% ভুল নেগেটিভ বা পজেটিভ আসতে পারে। আমাদের ল্যাবে ২০% ভুল রিপোর্ট আসছে। একদিনের রিপোর্ট দেখেতো হবে না। আর সেম্পল কালেকশানের সময় দুই স্থান থেকে সেম্পল নেওয়া উত্তম। দুই স্থান থেকে সেম্পল নিলে ভুল নেগেটিভ ও ভুল পজেটিভ হওয়ার সম্ভাবনা কম।’ তাই দুই স্থান থেকে গলা ও নাক থেকে সেম্পল নেওয়াটা উত্তম বলে জানিয়েছেন তিনি।
গতকাল শুক্রবার দুপুরে  কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের প্যাথোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. কান্তি প্রিয় দাশ মুঠোফোনে দৈনিক কুমিল্লার কাগজকে এসব কথা বলেন।
কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মো: মোস্তফা কামাল আজাদের নিকট এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, অনেক সময় সেম্পল কালেকশানের কারণে ফলস নেগেটিভ অথবা ফলস পজেটিভ আসতে পারে। সাধারণত সেম্পল দুই স্থান থেকে কালেকশান করতে হয়। এক স্থান থেকে কালেকশান করলে সঠিক রিপোর্ট আসেনা। লোকবল সংকটের কারণে দুই জায়গা থেকে সেম্পল নেওয়া সম্ভব হচ্ছেনা।  সেম্পল কালেকশান করতে হয় একটি গলার ভেতর থেকে অন্যটি নাকের ভেতর থেকে। শুধু গলা অথবা শুধু নাকের সেম্পল কালেকশান করলে এরকম ফলস রিপোর্ট আসতে পারে।
প্রথমে সেম্পল কালেকশানের জন্য যে টিউব এসেছিল সেগুলো ছিল কাঠের । কাঠের হওয়ার কারণে সেগুলো  শুষে নিতো। যার কারণে ফলস নেগেটিভ অথবা ফলস পজেটিভ আসতো।  বর্তমানে ৫হাজার  প্লাস্টিকের টিউব এসেছে।  সেগুলো আমি সিভিল সার্জন অফিসে পাঠিয়েছি। প্লাস্টিকের টিউবে সেম্পল নিলে সেগুলো নস্ট হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে। জীবানুটা জীবিত থাকার জন্য সেম্পলে মিডিয়া থাকা লাগে সেটা আগে ছিলনা ।  এখন মিডিয়া এসেছে সেটিও আমি পাঠিয়েছি। সমস্যা গুলো আস্তে আস্তে ইমপ্রোভ হচ্ছে। তাছাড়াও আন্তজার্তিক স্ট্যান্ডার্ড অনুযায়ী ৩০% ফলস নেগেটিভ অথবা ফলস পজেটিভ হতে পারে। আসলে মেশিন বন্ধ নাই। মেশিন রেস্টে দিতে হবে। ল্যাবটাকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করতে হবে। এজন্য আগামী দুই দিন বন্ধ থাকবে। আমরা সিভিল সার্জনের সাথে আলোচনা করেছি। ঢাকাতে কিছু সেম্পল পাঠিয়ে পরীক্ষা করার জন্য। আমাদের ল্যাবে দুই শিফটে ১৮০টি সেম্পল পরীক্ষা করা যায় । প্রতিদিন গড়ে প্রায় ৪শ থেকে সাড়ে ৪শ সেম্পল আসে। যার কারণে সেম্পল জমে যাচ্ছে। তাছাড়া সেম্পল ৩ থেকে ৫দিন পর্যন্ত রাখা যায়। আমাদের কুমিল্লায় প্রায় ৬৫লাখ মানুষের জন্য একটি পিসিআর মেশিন। অধিকাংশ মানুষ সচেতন না। মাস্ক ব্যবহার করছেনা। যাতায়াতের সময় স্বাস্থ্যবিধি মানছে না। এতো সংখ্যক মানুষ আক্রান্ত হলে পরীক্ষা করা যেমন কঠিন তেমন হাসপাতালে স্থান দেওয়া কঠিন হয়ে পড়বে। তাছাড়া ঢাকাতেও অনেক সেম্পল জমে আছে।





« পূর্ববর্তী সংবাদপরবর্তী সংবাদ »


সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft