ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
213
জেনে নিন ,কেন চায়ের সাথে এলাচ মেশাবেন ।
Published : Monday, 9 November, 2020 at 6:15 PM, Update: 09.11.2020 6:22:57 PM
জেনে নিন ,কেন চায়ের সাথে এলাচ মেশাবেন ।শীতের সাথে চায়ের একটা নিবিড় সম্পর্ক আছে। বাঙালির আড্ডা কিংবা অতিথি আপ্যায়নে চা সারা বছরই চলে। শীত এলে তার পরিমান আরো বেড়ে যায়। চা তৈরিতে অনেকেই অনেক ধরনের উপকরণ ব্যবহার করেন। বিশেষ করে চায়ের সঙ্গে দুধ, এলাচ মিশিয়ে খাওয়ার অভ্যাস আছে অনেকের। এটি শরীরের জন্যও উপকারী। এলাচে এমন কিছু উপাদান থাকে যা আমাদের মন ভালো রাখতে সাহায্য করে। ডিপ্রেশন, ডায়াবেটিসও দূরে রাখতে সাহায্য করে এলাচ।

অন্যদিকে চায়ের সঙ্গে দুধ মেশানো কতটা উপকারী এ নিয়ে তর্ক-বিতর্ক রয়েছে। । বিশেষজ্ঞরা বলছেন দুধ থেকে ফ্যাট তুলে নিয়ে তারপর চা বানালে সেই চায়ের স্বাদ কিন্তু অনেক বেশি হয়।কনডেন্স মিল্ক ছাড়া চা করলে দুধে পানি মিশিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে নিতে বলছেন বিশেষজ্ঞরা। খুব ভালো করে পানি-দুধ ফুটলে তারপর তাতে চায়ের পাতা, এলাচ মেশান।দুধ চায়ের ক্ষেত্রে গুঁড়া দুধ ব্যবহার করতে নিষেধ করেন বিশেষজ্ঞরা। শীতের সময়ে হজম ক্ষমতায় একটু সমস্যা প্রায় সবারই হয়। আর তাই তাতে যদি এলাচ মেশে তাহলে হজম ক্ষমত ভালো হয়। এছাড়াও শীতে ঠান্ডা লাগা, সর্দি কাশি দূর করতেও উপকারী এলাচ চা।

চায়ের সাথে এলাচ ব্যবহার করলে শুধু স্বাদ-ই বৃদ্ধি পায় না, এলাচ মেশানো চায়ের রয়েছে দারুন স্বাস্থ্যগত উপকার। আসুন, জেনে নিই এলাচ চায়ের উপকারিতা।


১. হজমে সহায়ক : আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে বর্ণিত আছে, খাওয়ার পরে এক কাপ এলাচ চা আপনার হজমে সহায়ক হবে। মশলাদার ও জাঙ্ক ফুড খাওয়ার ফলে আমাদের পাকস্থলিতে অ্যাসিডিটির সৃষ্টি হতে পারে। আর এ থেকে আপনাকে পরিত্রাণ দিতে পারে এক কাপ এলাচ চা।

২. দাঁতের জন্য উপকারী : প্রাকৃতিক অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল গুণ আছে এলাচে। এটি আপনার দাঁতে ব্যাকটেরিয়ার প্রভাবকে দমন করবে। তাই, খাবার পরে এক কাপ এলাচ চা শুধু আপনার নিঃশ্বাসকে সুগন্ধযুক্ত করবে না, সেই সাথে প্রতিরোধ করবে আপনার দাঁতে ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ।

৩. সর্দি থেকে বাঁচাবে : যদি আপনি ঠা-াজনিত কোনো অসুখে ভুগে থাকেন, তাহলে নিয়মিত পান করতে পারেন এলাচ চা। এটি সর্দি বা ঠা-ার জমাটবদ্ধতা থেকে আপনাকে আরাম দেবে। এ ছাড়াও রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখতে সহায়তা করে এলাচের চা।

৪. এটি অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল : এটা অনেকেই জানেন যে, এলাচ বা এলাচ চা অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল। যা আপনার চামড়ার ওপরে নানা আঘাত বা ক্ষতকে দ্রুত সারিয়ে তুলতে দারুণভাবে সহায়ক। 

৫. ফ্রি র‌্যাডিক্যালস ধ্বংস করে : এলাচ চায়ে আছে বিপুল পরিমাণ অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। যা আপনার শরীরে কোষের জন্য ক্ষতিকারক ফ্রি র‌্যাডিক্যালস ধ্বংস করার ক্ষমতা রাখে। এতে আরো আছে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামাটরি বৈশিষ্ট্য যা আথ্রারাইটিস, মাথাব্যথা ও নানারকম ইনজুরি থেকে আপনাকে দ্রুত সেরে উঠতে সহায়তা করবে।

৬. রক্ত সঞ্চালনের উন্নতিসাধন : প্রতিদিন ১-২ কাপ এলাচ চা আপনার রক্ত সঞ্চালনের দ্রুত উন্নতিসাধন করবে। সেই সাথে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াবে। এলাচে থাকা আয়রন আপনার শরীরে লোহিত রক্তকণিতা বাড়াবে, আপনার সামগ্রিক স্বাস্থ্যের উন্নতির জন্য যা ভূমিকা রাখবে।

এ ছাড়াও আপনার হৃৎপি-ের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে, শরীরকে নির্বিষ করা (ডিটক্সিফিকেসন), ওজন কমাতে এবং মাথাব্যথা থেকে দ্রুত মুক্তি পেতে এলাচ চা পান করুন, উপকার নিন।
জেনে নিন এলাচ চা তৈরির পদ্ধতি-

উপকরণ:
সবুজ এলাচ- ৫টি, দারুচিনি- ১ টুকরো, চিনি- স্বাদ মতো, দুধ- ১ কাপ, গোলমরিচ- ১টি, লবঙ্গ- ৪টি, চা পাতা- ২ চা চামচ, আদা গুঁড়া- ১ চা চামচ, আদা- মিহি করে কাটা কয়েক টুকরো।

প্রণালি:
এলাচের খোসা ফেলে ভেতরের দানা বের করে নিন। সব মশলা একসঙ্গে গুঁড়া করে নিন। প্যানে ৪ কাপ জল গরম করে চা পাতা দিন। গুঁড়া করে রাখা মশলা ও চিনি দিন। দুধ ও আদা গুঁড়া দিয়ে ফোটান। নামানোর আগে আদা কুচি দিয়ে অল্প আঁচে রেখে দিন কয়েক মিনিট। পরিবেশন করুন গরম গরম।





সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};