ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
1240
দেবিদ্বারে যেভাবে চলছে করোনা রোগীর চিকিৎসা
Published : Monday, 4 May, 2020 at 6:47 PM
দেবিদ্বারে যেভাবে চলছে করোনা রোগীর চিকিৎসাশাহীন আলম, দেবিদ্বার।
কুমিল্লার দেবিদ্বারে ক্রমেই বাড়ছে করোনা রোগীর সংখ্যা। এরই মধ্যে উপজেলার তিনটি এলাকাকে ‘রেড জোন’ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন উপজেলা প্রশাসন। ওই তিন এলাকা হলো, বরকামতা ইউপি’র বাগুর, নবীয়াবাদ ও পৌর এলাকার নিউ মার্কেট। করোনা শনাক্ত হয়ে মারা যাওয়া তিন ব্যক্তি ওই তিন এলাকার। গত এক  মাসে এ উপজেলায় করোনা শনাক্ত হয়েছেন ২০ জন। এর মধ্যে ৩ জন মারা গেছেন, ১৬ জন নিজ নিজ বাড়িতে হোম আইসোলেশনে  চিকিৎসা  নিচ্ছেন এবং ১ জন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রশিক্ষণ ভবনের দ্বিতীয় তলায় ৫ শয্যা বিশিষ্ট আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসা নিচ্ছেন। কিভাবে চলছে  দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আইসোলেশন ইউনিটে করোনা রোগীর চিকিৎসা?  কুমিল্লার কাগজের অনুসন্ধানে বের হয়েছে আইসোলেশনে চিকিৎসার হালচাল।  
উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়,  ঈড়ারফ-১৯ আইসোলেশন ইউনিটে গত ২৪ এপ্রিল রাত ৯টার দিকে করোনা সন্দেহভাজন এক নারীকে ভর্তি করা হয়। ওই নারী রোগী হলো বরকামতা ইউপি’র বাগুর গ্রামে করোনা পজেটিভ শনাক্ত হয়ে মারা যাওয়া ইউপি সদস্য মো. শাহজালাল মেম্বারের পুত্রবুধু সাথী আক্তার (২৪)। তার  স্বামীর নাম মামুন। তিনি একটি অনলাইন পত্রিকায় কাজ করেন বলে জানা যায়। তিনিও তার স্ত্রীর সাথে আইসোলশনে ভর্তি হোন। করোনার উপসর্গ নিয়ে আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি হওয়ার পরপরই তাদের দুজনের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকার আইইডিসিআরে পরীার জন্য পাঠানো হয়। গত ২৮ এপ্রিল দুপুরে  স্ত্রী সাথীর  ঈড়ারফ-১৯ পজিটিভ এবং মামুনের নেগেটিভ রিপোর্ট আসে। পরে তাদের দুজনকে আলাদা করে ফেলেন চিকিৎসক।
স্বাস্থ্য  অধিদপ্তরের  নির্দেশনা  অনুযায়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রশিক্ষণ ভবনের দোতলায় পৃথক একটি ভবনে স্থাপিত ঈড়ারফ-১৯ আইসোলেশন ইউনিটে নিবিড় পর্যবেক্ষণে এই রোগীর চিকিৎসা নিশ্চিত করেন উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। পরে এই নারী রোগীর চিকিৎসার জন্য আলাদা তিনটি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়। পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিটি টিম রয়েছে  দুইজন মেডিকেল অফিসার, দুইজন সিনিয়র স্টাফ নার্স ও  একজন ওয়ার্ড বয়। প্রতিটি টিম ১০ দিন দায়িত্ব পালন শেষে পরবর্তী ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইনে যাবে এবং ২য় টিম কাজ শুরু করবে। ২য় টিম একটানা ১০ দিন কাজ করার পর তারাও পরবর্তী ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইনে যাবে, এভাবে ৩য় টিম দায়িত্ব পালন করবে।  চিকিৎসকদের কোয়ারেন্টাইনের জন্য হাসপাতালের পুরাতন একটি কোয়ার্টার ‘সুরমা’ কে সাময়িকভাবে প্রস্তুত করা হয়েছে।
এদিকে, গত ২৪ এপ্রিল রাত থেকে প্রথম টিমের দুইজন চিকিৎসক ডা. আরিফুর রহমান মুন্সী ও ডা. মহিম ইবনে সিনা, দুইজন নার্স সৈয়দা নার্গিস আক্তার ও নাছরিন আক্তার এবং একজন ওয়ার্ড বয় কাজী ফারুক নিরলসভাবে রোগীর চিকিৎসা সেবা শুরু করেন। প্রথম টিমের গতকাল (৪ এপ্রিল) সোমবার রাতে ১০ দিন পূর্ণ হয়েছে। ওই টিম ১৪ দিনের জন্য কোয়ারেন্টাইনে চলে গেছেন। পরের ১০দিন ওই রাতেই ২য় টিম কাজ শুরু করে। এভাবে টিম ভিত্তিক আইসোলেশন ইউনিটে কাজ করছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা।  
এ ব্যাপারে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন করোনা শনাক্ত হওয়া ওই নারী কুমিল্লার কাগজকে জানান, প্রথমে শ^াস কষ্ট, জ¦র-সর্দি ছিলো, এখন ওই সমস্যা আর নেই। এখন শরীরে এলার্জি ও দূর্বলতা দেখা দিয়েছে। চিকিৎসকদের বিরামহীন প্রচেষ্টায় আমি বর্তমানে সুস্থতা অনুভব করছি। তার স্বামী মামুন জানান, হাসপাতালে চিকিৎসকরা আইসোলেশন ইউনিটে  রোগীকে নিয়মিত পর্যবেক্ষন করছেন ও  প্রয়োজনীয় সেবা ও পরামর্শ দিচ্ছেন। বেশীর ভাগ ওষধই হাসপাতাল থেকে দেয়া হয়েছে, তবে এরপরও কিছু ্ওষধ যেগুলো হাসপাতালে সাপ্লাই নাই সেগুলো বাইরে থেকে কিনতে হচ্ছে। খাবার, ঔষধ, পানীয়সহ অন্যান্য জিনিসপত্র সরবারাহ করা ও দেখাশোনার জন্য আইসোলেশনের পাশের রুমে সার্বক্ষনিক  থেকে একজন ওয়ার্ড বয় দায়িত্ব পালন করছেন।
প্রথম টিমে চিকিৎসকের দায়িত্বে থাকা ডা.আরিফুর রহমান মুন্সি জানান, যদিও আইসোলেশন ইউনিট আগে থেকেই প্রস্তুত ছিলো তবে এমন রোগীর চিকিৎসা আমরা এই প্রথম করেছি। প্রথমে একটু ভীতি কাজ করেছে। আমরা রোগীকে প্রচুর ফলোআপে রেখেছি। মনোবল দৃঢ় ও শক্ত রাখার জন্য বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করেছি। আগামী শক্রবার তার নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পাঠানোর কথা রয়েছে।    
এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আহাম্মদ কবীর কুমিল্লার কাগজকে জানান, আমাদের খাদ্য, বাসস্থান ও সুরা সামগ্রী সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রতিকুলতা ও প্রতিবন্ধকতা রয়েছে  তারপরেও চিকিৎসক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আইসোলেশন ইউনিটে  নিরলসভাবে  সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়াও আমি সার্বিক বিষয়টি নিবিড়ভাবে তদারকি করছি এবং চিকিৎসক,  নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করতে উৎসাহ  দেওয়া হচ্ছে।
 





© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};