ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
550
গ্রামগঞ্জে থামছে না জনসমাগম
ইউনিয়ন চেয়ারম্যান-মেম্বারদের উদাসীনতা?
Published : Tuesday, 7 April, 2020 at 12:00 AM, Update: 07.04.2020 1:17:42 AM

গ্রামগঞ্জে থামছে না জনসমাগমতানভীর দিপু||
করোনা সংক্রমন ঠেকাতে হোম কোয়ারেন্টাইনসহ অঘোষিত লক্ডডাউন পালিত হচ্ছে সারা দেশে। কোভিক-১৯ এর জীবানু ছড়াতে না পারে এজন্য সবাইকে ঘরে থাকার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে রাষ্ট্রীয় ভাবে, সামাজিক দূরত্বও নিশ্চিত করার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। তবে কুমিল্লা শহরের বিভিন্ন এলাকায় জনসমাগম কমে গেলেও গ্রামের পরিবেশ ঠিক ভিন্ন। শহরতলী থেকে শুরু করে উপজেলার বিভিন্ন বাজারগুলোতে জন সমাগম ঠিক স্বাভাবিক সময়ের মতই। এই জন সমাগম এড়াতে প্রশাসনের চেয়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের ভুমিকা বেশি বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।
গতকাল সোমবার বিকালে কুমিল্লার সদর উপজেলার আমড়াতলী ইউনিয়নের জনতা বাজারে গিয়ে দেখা যায়, ওই এলাকার রাস্তার দুই পাশে বসেছে সাপ্তাহিক হাট। লোকে লোকারন্য এই হাটে নারী-পুরুষ সবাই আসছেন বাজার করতে। দৃষ্টির এক ফ্রেমেই ২৫০ মিটার জায়গায় ক্রেতা বিক্রেতা মিলে কম করে হলেও ২০০ মানুষ দেখা যায় বিভিন্ন কেনাকাটায়। মাছ, মাংস, কাঁচা বাজার ব্যগ পুরিয়েই নিচ্ছেন অনেকে। আধা কিলো রাস্তা জুড়ে পুরো বাজারে রয়েছে অন্তত দেড় হাজার মানুষ। গায়ে গা ঘেষা অবস্থায় চলছে বাজার। কয়েক জন পুলিশ সদস্য বার বার তাদেরকে সামাজিক নিরাপত্তার কথা বললেও-সে সব যেন কেউ কানেও তুলছেন না। তরুনদের কেউ কেউ মাস্ক ব্যবহার করলেও অপেক্ষাকৃত বয়স্কদের কারো মুখে নেই মাস্ক। ভ্রাম্যমান মাছ ব্যবসায়ী রথিনের দোকনে গিয়ে দেখা যায় অন্তত ৮ জন লোক মাছ কেনার জন্য জড়ো হয়ে আছে। তাদের দুএক জনের মুখে মাস্ক আছে। বাকিদের নেই। যে যার মত কথা বলছেন, মাছের দাম দর করছেন। শহিদ নামে এক মাছ ক্রেতা জানান, করোনা ভাইরাস নিয়ে সবাই জানে। কিন্তু কেউ কিছু মানছে না। কেন মানছে না তা জানি না।
পাণ দোকানে বসা আলীম উদ্দিন নামে বয়স্ক এক লোক জানান, উনি বাজারে এসেছেন আড্ডা দিতে। দোকানে বসে পান খাচ্ছেন। করোনা ভাইরাস আল্লাহ দুনিয়াতে পাঠিয়েছেন-আল্লাহই তা দুনিয়া থেকে সরিয়ে নিবেন। এটা নিয়ে তার উদ্বেগের কিছু নেই।
শাহাদাত নামে কলেজ পড়–য়া একজন জানান, আমরা এলাকার সবাইকে বলি করোনা নিয়ে সচেতনতার কথা। কিন্তু কেউ শুনছে না। আসলে যারা করোনার ক্ষয় ক্ষতি সামনে থেকে প্রত্যক্ষ করছে না বলেই কেউ সামাজিক দূরত্ব মানছে না। প্রশাসন আরো কঠোর হওয়া প্রয়োজন।
কুমিল্লার আমড়াতরী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজী মোজাম্মেল হক জানান, আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। মানুষ কথা শুনে না। প্রশাসন কঠোর হতে হবে। জন সাধারণকে একবার সরিয়ে দেয়া হলেও তারা আবার কিছু সময় পরে এসে জরো হয়। শাস্তি বা জরিমানা করা গেলে এমনটা
গ্রামের বাজার গুলোতে জন সমাগম কমাতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানিয়ে কুমিল্লা সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জাকিয়া সুলতানা জানান, আমি প্রতিদিনই এসব বাজারগুলোতে ঘুরছি। মানুষকে বলছি ঘরে থাকতে। কিন্তু গ্রামের মানুষ-তার বুঝতে চায় না। তারপরও আমি দিন রাত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। তবে এক্ষেত্রে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি চেয়ারম্যান মেম্বারদের উদ্যোগ নিতে হবে সবচেয়ে বেশি।
ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা ফৌজিয়া সিদ্দিকা জানান, গ্রামগুলোতে জন সমাগম ঠেকাতে সব জনপ্রতিনিধিদের অবদান সমান না। অনেকে সহযোগিতা বেশি করেন এবং অনেকে কম করেন। সে ক্ষেত্রে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সহযোগিতা নিচ্ছি।
জেলাপ্রশাসক মোঃ আবুল ফজল মীর জানান, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয় থেকেই  নির্দেশনা আছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা ইউএনও এবং প্রশাসনকে সহযোগিতা করবেন। এব্যাপারে কেউ যদি অনীহা প্রকাশ করে তাহলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হবে।








© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};