ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
265
দাউদকান্দিতে করোনা উপসর্গ নিয়ে বৃদ্ধের মৃত্যু
Published : Monday, 6 April, 2020 at 12:00 AM
দাউদকান্দিতে করোনা উপসর্গ নিয়ে বৃদ্ধের মৃত্যু আলমগীর হোসেন,দাউদকান্দি||
কুমিল্লার দাউদকান্দিতে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন, এমন সন্দেহে লকডাউন করা হয়েছিল একটি বাড়ি। এর ৯ ঘণ্টা পর জ্বর, সর্দি, কাশি এবং শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা গেছেন আলেখ খান (৫৫) নামের এক ব্যক্তি। পেশায় তিনি কৃষক ছিলেন। লকডাউন থাকা অবস্থায় রবিবার সকাল ৮টায় তিনি মারা যান।
মৃত আলেখ খান দাউদকান্দি উপজেলার মারুকা ইউনিয়নের চক্রতলা গ্রামের বাসিন্দা। এর আগে শনিবার রাত ১১টায় তার অসুস্থতার লক্ষণের সঙ্গে করোনার উপসর্গ সামঞ্জস্যপূর্ণ মনে হওয়ায় তার পরিবারসহ একটি বাড়ির সাতটি পরিবারকে লকডাউনের আওতায় আনা হয়।
যোগাযোগ করা হলে দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো: শাহীনূর আলম সুমন বলেন,  ওই ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন কিনা জানার জন্য নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানে (আইইডিসিআর) পাঠানো হয়েছে।
এর আগে শনিবার (৪ এপ্রিল) উপজেলার চক্রতলা গ্রামের ৫৫ বছর বয়সী ওই বৃদ্ধের অসুস্থতার লক্ষণকে করোনা ভাইরাসের উপসর্গের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ মনে করায় উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার সুপারিশে সেই বাড়ির ৭টি পরিবারকে লক ডাউন  করা হয়। পরদিন রবিবার সকালে তার নমুনা সংগ্রহ করা হবে বলে জানিয়েছিলেন স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। কিন্তু  সকাল পৌনে ৮ টায় তিনি মারা যান। পরে নিহত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআর এ পাঠানো হয়।
জানা গেছে, আলেক খান নামের ওই ব্যক্তি ৪-৫ আগে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে জ্বর, সর্দি এবং কাশিজনিত রোগের চিকিৎসা নিয়ে যান। শনিবার পূর্বের সমস্যাগুলোর সঙ্গে শ্বাসকষ্ট শুরু হওয়ায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সঙ্গে যোগাযোগ করে তার পরিবার। চিকিৎসকেরা তার বাড়িতে গিয়ে অসুস্থতার লক্ষণকে করোনাভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার পরামর্শে ওই কৃষকের পরিবারসহ একটি বাড়ির ৭টি পরিবারকে লকডাউনের আওতায় আনা হয়।
দাউদকান্দি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম জানান, ‘একজনের করোনা আক্রান্ত সন্দেহে মারুকা ইউনিয়নের চক্রতলা গ্রামে রাতে একটি বাড়ি লকডাউন করা হয়। সেখানে আক্রান্ত সন্দেহভাজন ব্যক্তির পরিবারও রয়েছে। তার অসুস্থতার লক্ষণকে করোনার উপসর্গের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ মনে হওয়ায় সকালে নমুনা সংগ্রহ করার সিদ্ধান্ত ছিল। কিন্তু সকাল ৮টায় সেই ব্যক্তি মারা গেছেন। তারপরও স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা নমুনা সংগ্রহ করে আইইডিসিআরে পাঠান। রিপোর্ট আসলে জানা যাবে মারা যাওয়া ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন কিনা।’
এদিকে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া বৃদ্ধকে চক্রতলা গ্রামের কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।  রবিবার দুপুর দেড়টায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও দাউদকান্দি স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা  ও কর্মীদের বিশেষ দল ব্যক্তিগত সরঞ্জাম পড়ে সরকার নির্দেশিত নিয়মে ঐ বৃদ্ধর দাফন সম্পন্ন করেন।
ইসলামিক ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তা ও কর্মীরা ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম ( পিপিই) পড়ে ইসলামিক শরিয়ত মতে  মৃত বৃদ্ধর মরদেহ গোছল করান ও কাফনের কাপড় পড়ান। পরে ইসলামিক  ফাউন্ডেশন ও স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মীরা নিহতের বাড়ি থেকে পালষ্কে করে মরদেহ অন্তত এক কিলোমিটার দূরে কবরস্থানে নিয়ে যান। সেখানে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন ও স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মী ছাড়াও পরিবারের লোকজন অংশ গ্রহন করেন। দাফনের পর ইসলামিক  ফাউন্ডেশন ও স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মীদের ব্যবহৃত পিপিই খুলে পুড়িয়ে ফেলা হয়।





© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};