ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
305
বর্ষায় ভাইরাস জ্বরের লক্ষণ ও করণীয়
Published : Monday, 15 July, 2019 at 4:38 PM
বর্ষায় ভাইরাস জ্বরের লক্ষণ ও করণীয়  এখন বর্ষাকাল। আর বর্ষাকাল মানেই প্রচণ্ড রোদ এবং অসহ্য গরম। কিছুক্ষন পর হয়তো আবার দেখা যায় মেঘের ঘনঘটা, হঠাত শুরু হয় ঝুম বৃষ্টি। তারপর অফিসে ঢুকে কনকনে ঠান্ডা এসির হাওয়া। আবার রাতেও গরমের যন্ত্রণায় ফ্যান-এসি ছাড়া চলা দুষ্কর। কখনও ঠান্ডা কখনও আবার গরম, এমন হলে ঠান্ডা তো লাগবেই। এই সময়ে ভাইরাস জ্বরের ভয় থাকে সবচেয়ে বেশি। সেইসঙ্গে সর্দি, কাশি, মাথাব্যথা তো রয়েছেই।

ওয়েদার চেঞ্জের সময় এমন রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পাওয়াটা খুবই স্বাভাবিক ঘটনা, বিশেষত বর্ষাকালে। কারণ এই সময় জীবাণুদের সংখ্যা এমনিতেই বৃদ্ধি পায়, তাই ভাইরাল ফিভারে আক্রান্তের সংখ্যাও চোখে পড়ার মতো বাড়তে থাকে। এক্ষেত্রে হাঁচি, গলায় ব্যথা এবং জ্বরের মতো লক্ষণের বহিঃপ্রকাশ পেয়ে থাকে। মৌসুম বদলের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ে ভাইরাল ফ্লু। এর অনেকগুলো কারণ রয়েছে। তবে মূলত আবহাওয়ার সঙ্গে শরীরের নিজস্ব তাপমাত্রা সহ্যক্ষমতা সহজে মানিয়ে উঠতে না পারা এর মূল কারণ। মাঝে মাঝেই বৃষ্টির কারণে তাপমাত্রার আচমকা হেরফের ও ক্রমাগত দূষণের ফলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও কমতে থাকে।

দূষণের কারণে পরিবেশে অ্যালার্জেন ক্রমেই বাড়ছে। ফলে অ্যালার্জির হানা একটা বড় সমস্যা। সেই সুযোগে ভাইরাস বা কিছুক্ষেত্রে ব্যাকটেরিয়া শরীরে ঢুকে দ্রুত বংশবৃদ্ধি করে এই বিষয়টিকে আরও জটিল করে তুলছে। সাধারণত ভাইরাল ফ্লু-তে ঘুষঘুষে জ্বর যেমন থাকে, আবার ১০৩-১০৪ ডিগ্রি ফারেনহাইট পর্যন্ত জ্বরও উঠতে পারে।

ভাইরাস জ্বর কি ?

ভাইরাস জ্বর একটি সাধারণ স্বাস্থ্য সমস্যা। ডেঙ্গু, জন্ডিসসহ নানা কারণে ভাইরাস জ্বর হতে পারে। ভাইরাসজড়িত কারণে মানুষ ভাইরাস জ্বরে আক্রান্ত। আবহাওয়া পরিবর্তন ও প্রচন্ড গরমে এর প্রবণতা বৃদ্ধি পেতে থাকে।

অনেক সময় জ্বর কমলেও অ্যালার্জেনের প্রভাবে থেকে যাচ্ছে হাঁচি-কাশি। তাই ভাইরাস জ্বরের লক্ষণ দেখলেই প্রথম থেকে সচেতন হতে হবে।

লক্ষণ

গা গরম: সব সময় যে খুব বেশি জ্বর হবেই এমনটা নয়। হালকা গা গরম থেকেও শরীরে বাসা বাঁধতে পারে ভাইরাস জ্বর।

গা ব্যথা: জ্বরের সঙ্গে গা-হাত-পায়ে ব্যথা থাকে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই।

নাক দিয়ে পানি পড়া: অ্যালার্জির প্রভাবে নাক দিয়ে পানি পড়া, সর্দি-কাশির প্রভাব থাকে।

মাথা যন্ত্রণা: জ্বরের সঙ্গে মাথা যন্ত্রণা, দুর্বল লাগাও এই অসুখের অন্যতম লক্ষণ।

এছাড়াও খাওয়ার অরুচি, ক্লান্তি, দুর্বলতা লক্ষ করা যায়।

বর্ষায় ভাইরাস জ্বরের করণীয়

বৃষ্টি এড়িয়ে চলুন: যতটা সম্ভব বৃষ্টি এড়িয়ে চলুন। অল্প ভিজলেও ঠান্ডা লাগতেই পারে। তার হাত ধরে জ্বরে পৌঁছে যাওয়া নতুন কিছু নয়।

হালকা গরম পানিতে গোসল: ঠান্ডার ধাত থাকলে বর্ষাকালের পুরোটা সময় চেষ্টা করুন হালকা গরম পানিতে গোসল করতে।

মশারি টাঙিয়ে ঘুমান: মশারি টাঙিয়ে ঘুমনোর অভ্যাস করুন। এতে ডেঙ্গু- ম্যালেরিয়ার হাত থেকে বাঁচবেন।

মাস্ক ব্যবহার: বেশি দূষণযুক্ত এলাকায় থাকলে চেষ্টা করুন মাস্ক ব্যবহার করতে।

এসিতে প্রবেশ নয়: বৃষ্টিতে ভিজেই এসিতে প্রবেশ নয়। বরং ভিজে গেলেই ঘরে ফিরে হালকা গরম পানিতে গোসল করে নিন। এতে বৃষ্টির পানির দূষণ শরীর থেকে ধুয়ে যায় আবার পানিও বসে থাকতে পারে না শরীরে

পরামর্শ ছাড়া ওষুধ নয়: চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ নয়, কড়া ডোজ দিতে বলার অনুরোধও চলবে না।

শাক-সবজি খান: পাতে পর্যাপ্ত পরিমাণে রাখুন সবুজ শাক-সবজি। এতে ভাইরাস জ্বর হানা দিতে পারবে না

হলুদ মেশানো দুধ: রাতে বা দিনে একবার হলেও গরম গরম হলুদ মেশানো দুধ খাবেন।

মাঝে মধ্যে গরম পানিতে গার্গেল করবেন। এমনটা করলে দেখবেন গলার কোনও সমস্যা কাবু করতে পারবে না। কাশি হলেই কফের সিরাপ নয়। একান্ত দরকার পড়লে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।





সর্বশেষ সংবাদ
সর্বাধিক পঠিত
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};