ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
362
দেশে প্রথমবারের মত গরুর ব্রুসেলোসিস রোগের ব্যাকটেরিয়া শনাক্ত
Published : Saturday, 29 June, 2019 at 4:12 PM
দেশে প্রথমবারের মত গরুর ব্রুসেলোসিস রোগের ব্যাকটেরিয়া শনাক্ত দেশে প্রথমবারের মত গরুর ব্রুসেলোসিস রোগের ব্যাকটেরিয়া শনাক্ত করেছে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) একদল গবেষক। ২০১৫-২০১৮ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ তিন বছরের গবেষণায় দেশে গরুর ব্রুসেলোসিস রোগের জন্য দায়ী ‘ব্রুসেলা অ্যাবোরটাস বায়োভার-৩’ ব্যাকটেরিয়া শনাক্ত করা হয়েছে।

শনিবার (২৯ জুন) সকাল সাড়ে ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি ও হাইজিন বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এমন তথ্য জানান প্রধান গবেষক অধ্যাপক ড. মো. আরিফুল ইসলাম। গবেষক দলের অন্যান্য সদস্যরা হলেন মাইক্রোবায়োলজি ও হাইজিন বিভাগের অধ্যাপক ড. সুকুমার সাহা, ড. মোছা. মিনারা খাতুন এবং পিএইচডি শিক্ষার্থী মো. সাদেকুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক ড. মো. আরিফুল ইসলাম বলেন, ব্রুসেলা অ্যাবোরটাস নামক ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমনে বাংলদেশে গরু ও মহিষে ব্রুসেলোসিস রোগ হয়ে থাকে। ব্রুসেলোসিস একটি জুনোটিক রোগ যা প্রাণীর দেহ থেকে মানুষের দেহে সংক্রামিত হয়। এ রোগে আক্রান্ত গাভীর গর্ভপাতজনিত সমস্যা, মৃত বাচ্চা প্রসব, গর্ভফুল আটকে যাওয়া ইত্যাদি নানা লক্ষণ দেখা দেয়। ‘ব্রুসেলা অ্যাবোরটাস’ ব্যাকটেরিয়ার প্রায় ৮ টি ভ্যারাইটি থাকায় দেশিও গাভীগুলোতে কোনটি দ্বারা এ রোগ হয় তা এতদিন অজানা ছিল। ব্যাকটেরিয়ার এসকল ভ্যারাইটিকে বায়োভার বলা হয়।

তিনি আরও বলেন, দেশে সাধারণত আক্রান্ত গাভীর রক্ত বা দুধে এই রোগের অ্যান্টিবডির উপস্থিতি নির্ণয়ের মাধ্যমে ব্রুসেলোসিস রোগ সনাক্ত করা হয়। গবাদি পশুতে এ রোগ সনাক্ত করার জন্য রোজ ব্যাঙ্গল প্লেট টেস্ট, ইলাইসা, মিল্ক রিং টেস্ট করা হয়। তবে এই পরীক্ষা গুলো অনেক সময় আক্রান্ত প্রাণীতে সঠিকভাবে ব্রুসেলোসিস রোগ নির্ণয় করতে পারে না। তাই কোন প্রাণীতে ব্রুসেলোসিস নিশ্চিত করার সবচেয়ে উত্তম পদ্ধতি হলো আক্রান্ত প্রাণী থেকে এ রোগের ব্যাকটেরিয়া সনাক্ত করা। এই কথা চিন্তা করেই ব্যাকটেরিয়া শনাক্ত করার গবেষণাটি সম্পন্ন করা হয়েছে।

এছাড়াও এ ব্যাকটেরিয়ার সম্পূর্ণ জিনোম সিকুয়েন্স করা হয়েছে যা আমেরিকার ন্যাশন্যাল সেন্টার ফর বায়োটেকনোলজি ইনফরমেশন এর জিন ব্যাংকে জমা করা হয়েছে। আর এই জিনোম সিকুয়েন্স ব্যবহার করে ব্রুসেলোসিস রোগ নির্ণয় পদ্ধতি এবং এর কার্যকর টিকা উদ্ভাবন সম্ভব হবে। যেহেতু ব্রুসেলোসিস একটি জুনোটিক রোগ গরুতে এই রোগ নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব হলে মানুষেও এই রোগের প্রাদুর্ভাব কমানো সম্ভব হবে। 





© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};