ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
570
শুটকি পল্লীতে খুশির আমেজ
Published : Sunday, 10 February, 2019 at 2:08 PM
শুটকি পল্লীতে খুশির আমেজআবহাওয়া অনুকূল ও জলদস্যুদের উৎপাত না থাকায় শুটকি পল্লীতে খুশির আমেজ বইছে। এ কারণে গেল বছরের তুলনায় এবার সরকার বেশি রাজস্বও পাবে বলে আশা করছেন বন বিভাগ। জেলেরা নিজেদের ইচ্ছামত মাছ আহরণ করে শুটকি তৈরি করছেন। এবার মৌসুমের দুই মাস বাকি থাকতেই গত বছরের তুলনায় দ্বিগুন রাজস্ব আদায় করেছে সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগ।

প্রতি বছরের অক্টোবর থেকে মার্চ পর্যন্ত সুন্দরবনের দুবলার চরসহ বঙ্গোপসাগরের ৬টি চরে প্রায় ১৫ হাজার জেলে মাছ আহরণ করে শুটকি প্রক্রিয়াজাত করণের কাজে নিয়োজিত থাকে।

সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগ সূত্রে জানা যায়, এবার আলোরকোল (দুবলার চর), মেহের আলীর চর, অফিস কেল্লা, মাঝের কেল্লা, নারকেল বাড়িয়া ও শেলার চরে মোট ১ হাজার ২৫টি জেলে ঘর, ৪৮টি ডিপো ঘর, নিত্য প্রয়োজনীয় ষড়ঞ্জামাদির দোকান ৭৯টি ও ৭টি ভাসমান দোকানের পারমিট (অনুমতি) দেয়া হয়েছে। এসব জেলেদের থেকে এবার ডিসেম্বর পর্যন্ত ৬৯ লক্ষ ৮৩ হাজার ৪৪ টাকা রাজস্ব এবং ১০ লক্ষ ৪৭ হাজার ৪‘শ ৫৬ টাকা ভ্যাট আদায় হয়েছে। গেল বছর পুরো মৌসুমে রাজাস্ব আদায় হয়েছিল ৩৩ লক্ষ ৭৮ হাজার ৮‘শ ৩৬ টাকা এবং ভ্যাট ছিল ৫ লক্ষ ৬ হাজার ৮‘শ ২৫ টাকা। হিসেব অনুযায়ী এবার মৌসুমের অর্ধেক সময়েই আমাদের দ্বিগুনের বেশি রাজস্ব আদায় হয়েছে।

শুটকি পল্লীতে খুশির আমেজসুন্দরবনের মাঝের কিল্লার চরে মাছ আহরণকারী রামপাল উপজেলার পেড়িখালী গ্রামের আক্কাস আলী বলেন, এবার সমুদ্রে ডাকাতদের উৎপাত নাই। সমুদ্রও শান্তছিল বেশিরভাগ সময়। আমরা নিজেদের মত মাছ আহরণ করতে পেরেছি। গেল বছরের তুলনায় এবার অনেক বেশি মাছ পেয়েছি। আলোর কোলের শুটকি ব্যবসায়ী নুর ইসলাম বলেন, আমরা অনেক দিন যাবৎ শুটকির ব্যবসা করি। জেলের মাধ্যমে মাছ আহরণ করে, শুটকি তৈরি করে দেশিয় বাজারে এবং বিদেশে রপ্তানি করে থাকি। এ বছর জেলেদের জালে বেশি মাছ ধরা পড়ছে। যার ফলে জেলে ও এ প্রক্রিয়ার সাথে জড়িত সকলের মনে খুশির আমেজ বিরাজ করছে।

দুবলা ফিসারম্যান গ্রুপের নেতা কামাল উদ্দিন আহমেদ বলেন, শুটকি মৌসুমে জেলেদের উপর বনদস্যু ও জলদস্যুদের ব্যাপক উৎপাত হত। বেশ কয়েক বছর ধরে দস্যুদের আত্মসমর্পণ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা বৃদ্ধি পাওয়ায় এবার জেলেরা শান্তিতে মাছ আহরণ করতে পারছে। এবার অনেক জেলে ও ব্যবসায়ীরা বিগত বছরের লোকসান কাটিয়ে উঠতে পারবে বলে আমরা আশা করছি।

শুটকি পল্লীতে খুশির আমেজসুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মোঃ মাহমুদুল হাসান বলেন, প্রাকৃতিক কোন দুর্যোগ না হওয়ায় এবং দস্যুদের কোন উৎপাত না থাকায় জেলেরা বেশি মাছ আহরণ করতে পেরেছে। যার ফলে রাজস্ব আদায় বেড়েছে। আশা করি এবার মৌসুমে গত বছরের তুলনায় তিনগুন রাজস্ব আদায় হবে।









© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};