ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
383
চার স্পিনার নিয়ে খেলা বেশি চ্যালেঞ্জের : সাকিব
Published : Thursday, 29 November, 2018 at 5:38 PM
চার স্পিনার নিয়ে খেলা বেশি চ্যালেঞ্জের : সাকিব টেস্ট ক্রিকেটে বিশেষজ্ঞ চার স্পিনার নিয়ে খেলা কোনো নিত্যনৈমিতিক ঘটনা নয়। এর সাথে যদি হয় মাত্র এক পেসার, তাহলে তো ক্রিকেট ইতিহাসেরই বিরল কিছু ঘটনার একটি হয়ে যায় এটি। চট্টগ্রাম টেস্টে ঠিক এ কাজটিই করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল।

একমাত্র পেসার মোস্তাফিজুর রহমানের সাথে খেলেছেন চার স্পিনার- সাকিব আল হাসান, তাইজুল ইসলাম, মেহেদি হাসান মিরাজ ও নাঈম হাসান। ম্যাচে মোস্তাফিজের অবদানও ছিলো অতি সামান্য। প্রথম ইনিংসে সবার আগে বোলিংয়ে এসে করেছিলেন মাত্র দুই ওভার, দ্বিতীয় ইনিংসে সবার পরে বোলিংয়ে এসেও জুটেছে সেই দুই ওভারই। ব্যাট হাতেও যে খুব বেশি বল খেলেছেন তেমনও নয়। দুই ইনিংসে ব্যাট করেছেন কেবল ছয়টি বল।

বাংলাদেশ ম্যাচটাও জিতেছে সম্পূর্ণ স্পিনারদের কৃতিত্বেই। প্রতিপক্ষ ওয়েস্ট ইন্ডিজের ২০ উকেটের সবকয়টিই নিয়েছেন বাংলাদেশের স্পিনাররা। দলের সেরা স্পিনার সাকিব আল হাসান পেয়েছেন পাঁচটি, তার চেয়ে বেশি সাতটি নিয়েছেন তাইজুল। অভিষিক্ত নাঈমও নিয়েছেন পাঁচটি, মিরাজের দখলে বাকি তিনটি।

আগে দেখা যেত দলের যে কোনো এক বা দুই স্পিনারই নিতো সব উইকেট। এখন সেটি ভাগাভাগি হয় চার জনে। যে কারণে এখন ব্যক্তিগত বোলিংটা আরও বেশি চ্যালেঞ্জিং হয়েছে বলে মনে করেন সাকিব। কারণ চারজনের প্রত্যেকেই করেন আক্রমণাত্মক বোলিং, চারজনেই উইকেট নেন সমান তালে।

তবে এই চ্যালেঞ্জটি উপভোগ করেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। কারণ এতে দলের মধ্যে একটি সুস্থ প্রতিযোগিতা সৃষ্টি হয়। তিনি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয় চার স্পিনার খেলাটা এক্সাইটমেন্টের চেয়ে বেশি চ্যালেঞ্জিং। কারণ, তখন সবাই পাফরর্ম করার চেষ্টা করবে আরও বেশি। সবার ভেতরে দলের জন্য অবদান রাখার তাড়না থাকবে আরও বেশি। যখন দেখবে আরেকজন উইকেট পাচ্ছে, অন্য বোলার চাইবে সে যেন তার চেয়ে আরও ভালো করতে পারে। আমার মনে হয়, এটা খুব ভালো একটা কম্পিটিশন তৈরি করবে দলের ভেতরে, আমাদের চারজন স্পিনারের ভেতরে। আমাদের দুই জন লেফট আর্ম স্পিনার আর দুজন অফ স্পিনার, আমাদের নিজেদের ভেতর একটা কম্পিটিশন থাকবে। যেটা খুবই ভালো ম্যাচটা ভালো করার জন্য।’

তবে দলে চার জন স্পিনার থাকায় জুটি বেঁধে বোলিংটা আসলেই এক্সাইটিং বলে জানান সাকিব। এছাড়া চারজনই আক্রমণাত্মক বোলিং করায়, সবসময়ই দুই প্রান্ত থেকে আক্রমণাত্মক বোলিং চালানো যায় বলে মনে করেন টাইগারদের অধিনায়ক।

সাকিবের ভাষ্যে, ‘একদিক থেকে অবশ্যই এক্সাইটিং। আমরা যেমন জুটি গড়ে বোলিং করতে পেরেছি। একই সাথে আমার কাছে মনে হয় অধিনায়ক হিসেবে এটা একটু চ্যালেঞ্জিংও। কারণ স্পিনাররাও সব সময় চায় বড় স্পেল করার জন্য। যেটা আমি তাইজুল ছাড়া আর কাউকে দিয়ে করাতে পারিনি। ওটা একটা চ্যালেঞ্জিং জায়গা।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘তবে এক দিক থেকে চ্যালেঞ্জিং হলেও আরেক দিক থেকে অনেক এক্সাইটিং, কারণ সবাই চেষ্টা করছে দলের প্রয়োজনে সবাই একটা উইকেট নিতে বা ভালো বোলিং করার। আর দেখতে আমার কাছে ভালো লেগেছে, সব সময় দুই প্রান্ত থেকে অ্যাটাক করতে পেরেছি, যেটা আমার কাছে মনে হয়েছে অনেক ভালো একটা দিক। আমাদের চেষ্টা থাকবে এই টেস্টেও যেন দুই দিক থেকে অ্যাটাক করতে পারি এবং পার্টনারশিপে ভালো বল করতে পারি। এটা আমার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়। সাধারণত যে উইকেট হয়ে আসছে ওরকম যদি হয় তাহলে পার্টনারশিপটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ হবে।’




Loading...

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};