ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন অ্যাপস কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
দখলকৃত ভরাট খাল পুনরুদ্ধারে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ
Published : Saturday, 23 June, 2018 at 12:00 AM, Update: 23.06.2018 1:13:03 AM
দখলকৃত ভরাট খাল পুনরুদ্ধারে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদএবিএম আতিকুর রহমান বাশার :
দেবীদ্বারে বেদখলকৃত ও ভরাট খাল পুনরুদ্ধারে ক্ষতিগ্রস্থ প্রায় শতাধিক কৃষক মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছে। শুক্রবার সকাল ১১টায় দেবীদ্বার উপজেলার ১০নং গুনাইঘর (দঃ) ইউনিয়নের উজানী কান্দি গ্রামের আ’লীগ নেতা মোঃ কবির আহমেদ’র বাড়ির সামনের দখলকৃত খালের পাশে ক্ষতিগ্রস্থ প্রায় ৩শত একর ফসলী জমির মালিক, বন্ধকী ও বর্গা কৃষকরা ‘খাল ভরাট বন্ধ কর, কৃষক বাঁচাও-পরিবেশ বাঁচাও’ এশ্লোগানকে সামনে রেখে ওই মানব বন্ধন ও প্রতিবাদ সভা করেছেন। ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকরা এহেন ধৃষ্ঠতা প্রদানকারী  খালদখলদারদের আইনের আওতায় আনা এবং দখল ও ভরাটকৃত খাল পুনরুদ্ধারে কৃষকদের ফসলী মাঠ রক্ষায় প্রধান মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
বক্তারা বলেন, জীববৈচিত্র ও পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা এবং জলাবদ্ধতা নিরসনে নদী, খাল, দীঘি, পুকুর, নালা জলাশয় ভরাট ও দখল বন্ধ এবং দখলকৃত সরকারী সম্পত্তি উদ্ধারে প্রধান মন্ত্রীর নির্দেশ উপেক্ষা করে দেবীদ্বারের স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী লোক জোড়পূর্বক সরকারী খাল দখল ও ভরাট করার অবিযোগ করে বলেন, দখলদাররা ওই খালের জায়গায় বাড়ি- ঘর- ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, পোল্ট্রি ও মৎস খামার তৈরী কারেছেন। ফলে এলাকায় জলাবদ্ধতা চরম আকার ধারন করেছে। শুধু মাত্র উপজেলার ১০নং গুনাইঘর (দঃ) ইউনিয়ন পরিষদ’র উজানীকান্দি গ্রামে সড়কের দু’পাশের মাঠের ৩শত একর জমির ফসল বিগত ৮/১০ বছর ধরে কৃষকরা ঘরে তুলতে পারছেননা। সামান্য বৃষ্টিতে ফসলের মাঠ তলিয়ে যাচ্ছে, বাড়ি-ঘর-সড়ক ও পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে। এতে এ এলাকার সাধারন অধিবাসী, ফসলী জমির মালিক, বন্ধকী ও বর্গা চাষিরা জলাবদ্ধতার কারনে মানবেতর জীবন যাপন করে আসছে। প্রতিকার চেয়ে গত কয়েক বছর ধরে ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাবাসী লিখিত অভিযোগ প্রদানে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেও কোন প্রতিকার পায়নি। তাই তারা মানবেতর জীবন থেকে মুক্তি পেতে প্রধান মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।   
মানববন্ধন চলাকালে গুনাইঘর দক্ষিণ ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মজিবুল ইসলাম মান্নানের সভাপতিত্বে ওই মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন কৃষক মোঃ মোসলেম মিয়া, মোঃ আব্দুল সালাম, মোঃ জসিম উদ্দিন, মনিরুল ইসলাম সরকার, নাঈম উদ্দিন সরকার, আবু মুছা সরকার ও রমিজ উদ্দিন সরকার প্রমূখ।
শুক্রবার মানব বন্ধন শেষে সরেজমিনে এলাকা ঘুরে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়। এ এলাকাটি এক সময় খালপ্রধান ছিল। বেশ কয়েকটি খাল উজানীজোড়া থেকে উজানীকান্দী গ্রামের উপর দিয়ে বল্লভপুর গ্রামের খালে সংযোগ ছিল। ফলে জলাবদ্ধতা থাক দূরের কথা,- শ্রোতশীল খালের পানি দিয়ে নৌচলাচল, মৎস আহরন, শুকনা মৌসুমে আবাদী জমিতে পানি সরবরাহ সহ গ্রামবাংলার এক চিরায়ত মোহনীয় পরিবেশ ছিল। আজ তা থেকে বঞ্চিত। প্রসস্ত খালগুলো ভরাটই নয়, খাল ভরাট ও দখল করে মার্কেট, বাড়ি, মৎস ও পোল্ট্রি খামার নির্মান করে ফেলেছে। সরকারী সড়ক ও খালের দু’পাশের পাড়গুলো বেদল করে চলাচরে বাঁধা সৃষ্টি করা হচ্ছে।
গ্রামের প্রবীন ব্যক্তি রমিজ উদ্দিন সরকার বলেন, আমাদের গ্রামে জলাবদ্ধতার কারনে সরকারী স্বাস্থ্য সেবায় কিনিক নির্মানে জলাবদ্ধতার কারনে মেসিনে পানি সিচে কাজ করছেন সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার।
দখলদার কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, ওদের নিজ ভিটে-মাটি ও জমির পাশের খাল দখল করেছেন মাত্র, অন্যের জমি বা বাড়ির সামনের জমি কেহই দখল করেননি। এ খাল ভরাটে সকলেই প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করে এবং তাদের সম্মতি নিয়েই ভরাট ও দখল করেছেন।
দখলদার মোঃ হারুন-অর-রশিদ’র স্ত্রী, আ’লীগ নেতা মোঃ কবির আহমেদ জানান, আমরা যখন খাল ভরাট করে বাড়ি ও মার্কেট নির্মান করেছি তখন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে আর্থিক সহযোগীতা করতে হয়েছে। তা ছাড়া ভূমি কর্মকর্তা কিংবা ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বার সহ সংশ্লিষ্টরা বাধাঁ দিলে বা নিষেধ করলে আমরা এ অপরাধ কখনোই করতামনা। আজ সরকার যদি খাল পুনরুদ্ধার করতে চায় আমরা আপত্তি না করেই দিয়ে দেব। তবে আমাদের খরচে খাল খনন করবনা।
অপর দিকে ২০১৫ সালে খাল ভরাটকরে বাড়ি নির্মানের অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া মনিরুল ইসলাম’র স্ত্রী জানান, আমার স্বামীকে খাল ভরাটের অভিযোগে পুলিশ গ্রেফতার করে ভ্রাম্যমান আদালতে ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করে ছেড়ে দেয়। খাল খনন করে দেয়া কিংবা উচ্ছেদের কথা বলেননি। তবে সরকার চাইলে ছেড়ে দেব।
কৃষক মোসলেম উদ্দিন জানান, উজানীকান্দি জলায় ৭৫ শতাংশ ভূমি বন্ধক রেখে ফসল আবাদ করেছিলাম, জলাবদ্ধতার কারনে ফসল পাইনি।
কৃষক আব্দুস সালাম জানান, প্রবল বর্ষণের সময় পানিতে তলিয়ে যাওয়া ৩০ শতক জমির ধান তুলে আনতে শ্রমিকদের ৫হাজার টাকা দিতে হয়েছে। অধিকাংশ জমির ধান কাঁচা থাকতেই তলিয়ে গেছে। তিনি আরো জানান, উজানীকান্দি গ্রামের সাড়ে ৫একর সরকারী জমির উপর তৈরী ঐতিহ্যবাহী উজানীকান্দি খেলার মাঠটি জলাবদ্ধতার কারনে প্রায় ৮/১০ বছর ধরে পরিত্যাক্ত রয়েছে।
খালের পাশে নির্মানাধীন দোকান মালিক মৃত: এশত আলীর পুত্র আঃ সালাম জানান, সে দরিদ্র তাই জীবীকা নির্বাহে সরকারী জমির উপর একটি দোকান নির্মান করেন। প্রতিবেশী ফজলুল হক দোকানটি সম্পূর্ণ গুড়িয়ে দেয়, এতে আমার প্রায় অর্ধলক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন করা হয়। অভিযুক্ত ফজলুল হকের স্ত্রী রোকসানা বেগম বলেন, আমার বাড়ির সামনের অংশে খালের উপর নির্মিত কালভার্ট’র মুখ বন্ধ করে বহিরাগত আঃ সালাম দোকান নির্মান করতে চাইলে আমি বাঁধা দেই। বাঁধা দেয়ার কারনে সালাম বহিরাগত সন্ত্রাসী দিয়ে আমার বসত ঘর ভাংচুর করে। আমরা আমাদের বাড়ির সামনের সরকারী জায়গায় ঘর নির্মাণ করেছি, ঘর উচ্ছেদ করলে সরকারের লোকজন করবে, অথচ একজন বহিরাগত লোক আমার বসত ঘর ভাংচুর করে ব্যপক ক্ষতি সাধন করেছে। কোন বিচার পাইনি।
গ্রামের প্রতিবাদী যুবক আলী হোসেন জানান, রাজামেহার ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল আহসান মূন্সী আদর্শ কলেজ’র অধ্যক্ষ মোঃ সফিকুল ইসলাম উজানীজোড়া-বল্লভপুর খালের অনেক জায়হা ভরাট করে এবং সীমানা প্রচীর করে মৎস, পোলিাট্র খামার করেছে। এমনকি ভরাটকরা সরকারী জমির উপর পিতার কবর বানিয়েছে। প্রভাবশালী হওয়ায় কোন প্রতিকার পাইনি।



Loading...

সর্বশেষ সংবাদ
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৮
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন, কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ।
ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ই মেইল: [email protected], [email protected],  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ ১২২ অধ্যক্ষ আবদুর রউফ ভবন
কুমিল্লা টাউন হল গেইটের বিপরিতে, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : [email protected] Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};