ই-পেপার ভিডিও ছবি বিজ্ঞাপন অ্যাপস কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স কুমিল্লার ইতিহাস ও ঐতিহ্য লাইভ টিভি লাইভ রেডিও সকল পত্রিকা যোগাযোগ কুমিল্লার কাগজ পরিবার
Count
996
আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলনে মতিন খসরু
রায় বিএনপিকে রাজনীতির সুযোগ করে দিয়েছে
Published : Thursday, 10 August, 2017 at 7:36 PM
সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন আবদুল মতিন খসরু। পাশে শ ম রেজাউল করিম l সুপ্রিম কোর্টের রায় ও পর্যবেক্ষণে অনেক কথা এসেছে, যা অপ্রয়োজনীয় এবং এটা বিএনপিকে রাজনীতি করার সুযোগ করে দিয়েছে। গতকাল বুধবার আওয়ামী লীগ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলা হয়।

দলের ধানমন্ডি কার্যালয়ে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুল মতিন খসরু ও আইনবিষয়ক সম্পাদক শ ম রেজাউল করিম সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন। সম্মেলনে বলা হয়, আইনজীবীদের একটি সেল বিষয়টি নিয়ে কাজ করছে। রায় পুনর্বিবেচনা করা হবে, নাকি অনভিপ্রেত, অনাকাঙ্ক্ষিত ও অপ্রত্যাশিত পর্যবেক্ষণ বাতিলের জন্য আবেদন করা হবে, সেটা নিয়ে পর্যালোচনা চলছে।

১ আগস্ট সুপ্রিম কোর্ট ষোড়শ সংশোধনীর পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর গতকালই আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে প্রথম আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে বারবার জোর দিয়ে বলা হয়েছে, বিএনপি রায়ের অপব্যাখ্যা করে রাজনীতি করছে, যা দুর্ভাগ্যজনক।

সংবাদ সম্মেলনে শ ম রেজাউল করিম বলেন, ষোড়শ সংশোধনীর রায় পুনর্বিবেচনার আবেদন করা হবে, নাকি পর্যবেক্ষণে আসা অনাকাঙ্ক্ষিত বিষয় বাতিল করার জন্য আবেদন করা হবে, এটি নিয়ে তাঁরা ভাবছেন। দলীয়ভাবে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি।

কোনো এক ব্যক্তি দ্বারা একটি দেশ বা জাতি তৈরি হয়নি এবং সংসদ অপরিপক্ব—এমন পর্যবেক্ষণের প্রসঙ্গ টেনে রেজাউল করিম বলেন, একাত্তরের খুনি, রাজাকারও স্বীকার করবে দেশ স্বাধীন হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে। এজাতীয় কথাগুলো আদালতের বিচার্য বিষয়ের সঙ্গে সম্পৃক্ত নয়। ষোড়শ সংশোধনী বৈধ কি অবৈধ বা এটা সংবিধানের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কি না, আদালত এটুকু পর্যন্ত বলতে পারতেন বলে মত দেন তিনি।

আবদুল মতিন খসরু বলেন, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের রায় নিয়ে কোনো বিতর্ক চলে না, রাজনীতিও চলে না। বিএনপির কয়েকজন নেতা উসকানিমূলক কথা বলছেন, এটা নিয়ে রাজনীতি করার অপপ্রয়াস চালাচ্ছেন। কারণ, তাঁদের হাতে আর কোনো খেলা নেই। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ রায় নিয়ে রাজনীতি করতে চায় না। আওয়ামী লীগের পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘রায় নিয়ে দলীয়ভাবে এখনো পর্যালোচনা ও পর্যবেক্ষণ চলছে। দলীয়ভাবে পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদন করা হবে কি না।’

মতিন খসরু আরও বলেন, সুপ্রিম কোর্ট তাঁদের প্রতিপক্ষ নয়, কিন্তু বিএনপি প্রতিপক্ষ বানানোর চেষ্টা করছে। আদালত রাজনীতির ঊর্ধ্বে, শেষ আশ্রয়স্থল। তাই রায় নিয়ে রাজনীতি করা উচিত নয়।

এই পরিস্থিতিতে আজ বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে ষোড়শ সংশোধনী বাতিল-সংক্রান্ত রায়ের বিষয়ে সরকারের বক্তব্য তুলে ধরবেন।

এদিকে আজ সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলী ও সম্পাদকমণ্ডলীর সভা ডাকা হয়েছে। দলীয় সূত্র জানিয়েছে, ষোড়শ সংশোধনীর বিষয়ে দল ও সরকারের কৌশল নিয়ে সভায় আলোচনা হতে পারে। এই বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এর আগে গত সোমবার সাবেক আইনমন্ত্রী শফিক আহমেদ, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন ও আবদুল মতিন খসরু প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার সঙ্গে দেখা করেন।

আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণী সূত্র জানায়, ওই সাক্ষাতে কিছু কিছু পর্যবেক্ষণে যে আওয়ামী লীগের আপত্তি আছে, তা তুলে ধরা হয়।

প্রধান বিচারপতির সঙ্গে আওয়ামী লীগের তিন নেতার সাক্ষাৎ সমঝোতার চেষ্টা কি না, গতকালের সংবাদ সম্মেলনে এমন প্রশ্ন করা হলে আবদুল মতিন খসরু বলেন, এটা সৌজন্য সাক্ষাৎ ছিল। তাঁরা রায় নিয়ে আলোচনা করার জন্য যাননি।

সরকার ক্ষমতায় থাকতে পারবে না, সরকার অবৈধ—বিএনপি নেতাদের এমন বক্তব্যের সমালোচনা করেন রেজাউল করিম। তিনি বলেন, রায়ে সরকার ক্ষমতায় থাকতে পারবে না বা অবৈধ এমন কিছু বলা হয়নি। বিএনপিকে এটা প্রমাণের চ্যালেঞ্জ করেন তিনি।

গত জুলাইয়ে ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে সংক্ষিপ্ত রায় প্রকাশের পর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকে আলোচনা হয়েছিল। এরপর সংসদে ১০ জন মন্ত্রী-সাংসদের বক্তব্যেও এ নিয়ে আলোচনা ওঠে। সর্বশেষ গত সোমবার মন্ত্রিসভার বৈঠকে ওই রায়ের সমালোচনা করা হয়। আইনমন্ত্রী, অ্যাটর্নি জেনারেলসহ সরকারের একাধিক মন্ত্রী বলে আসছেন যে এই রায়ের পর সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিল আপনাআপনি পুনরুজ্জীবিত হয় না। এর জন্য জাতীয় সংসদে আইন লাগবে।

গত শুক্রবার অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সিলেটে বলেছিলেন, আদালত যতবার বাতিল করবেন, ততবার তাঁরা এটি সংসদে পাস করাবেন। এই অবস্থার মধ্যেই ৬ আগস্ট প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বে সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিলের প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

আদালতের রায়ের পর সুপ্রিম জুডিশিয়াল কাউন্সিলের বৈঠক প্রসঙ্গে জানতে চাইলে আবদুল মতিন খসরু বলেন, এ বিষয়ে দুই ধরনের মতই আছে। দুই ধরনের ধারণাই আছে। তবে তাঁরা বিষয়টি নিয়ে এখনো পর্যালোচনা করছেন। দলীয়ভাবে পরে সিদ্ধান্ত জানানো হবে।

সরকার ও দলের দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, আদালতের পর্যবেক্ষণে সরকার, সংসদ, সরকার পরিচালনার ধরন ও নির্বাচনব্যবস্থা নিয়ে যেসব পর্যবেক্ষণ এসেছে, তা মেনে নিতে পারছে না সরকার। এ জন্যই বিচ্ছিন্নভাবে, ব্যক্তিগত পর্যায়ে এবং দলীয়ভাবে বিভিন্ন ব্যাখ্যা ও বক্তব্য তুলে ধরার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য সম্পর্কে জানতে চাইলে আবদুল মতিন খসরু বলেন, অর্থমন্ত্রী দেশের জ্যেষ্ঠ নাগরিক। এটা তাঁর ব্যক্তিগত মতামত। এটা দলের অবস্থান নয়। তিনি আরও বলেন, যেকোনো রায় প্রকাশের পর তা সবার জন্য উন্মুক্ত (পাবলিক প্রোপার্টি) হয়ে যায়। যে কেউ গঠনমূলক সমালোচনা করতেই পারেন।



© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
কুমিল্লার কাগজ ২০০৪ - ২০১৬
সম্পাদক ও প্রকাশক : মোহাম্মদ আবুল কাশেম হৃদয় (আবুল কাশেম হৃদয়)
নির্বাহী সম্পাদক: হুমায়ূন কবীর জীবন
কার্যালয়: কাজী অহিদুজ্জামান ম্যানশন, তৃতীয় তলা, কান্দিরপাড়,কুমিল্লা-৩৫০০, বাংলাদেশ
ফোন: +৮৮০ ৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২৪৪৩, +৮৮০ ১৭১৮০৮৯৩০২
ই মেইল: hridoycomilla@yahoo.com, newscomillarkagoj@gmail.com,  Developed by i2soft
সম্পাদক ও প্রকাশকঃ আবুল কাশেম হৃদয়
বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয়ঃ কাজী অহিদুজ্জামান ম্যানশান।
তৃতীয় তলা, কান্দিরপাড়, কুমিল্লা ৩৫০০। বাংলাদেশ। ফোন +৮৮ ০৮১ ৬৭১১৯, +৮৮০ ১৭১১ ১৫২ ৪৪৩
ইমেইল : hridoycomilla@yahoo.com Developed by i2soft
document.write(unescape("%3Cscript src=%27http://s10.histats.com/js15.js%27 type=%27text/javascript%27%3E%3C/script%3E")); try {Histats.start(1,3445398,4,306,118,60,"00010101"); Histats.track_hits();} catch(err){};